ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর এক অনুষ্ঠানে ড্রোন থেকে বিস্ফোরণ ঘটানোর দায় স্বীকার করেছেন দেশটির সাবেক এক পুলিশ কর্মকর্তা। একটি শহরের পুলিশ প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন ৫২ বছর বয়সী এই মাদুরো-বিরোধী। শনিবার রাজধানী কারাকাসে দেশটির সেনাবাহিনীর ৮১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেওয়ার সময় ওই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। এতে সাত সেনাসদস্য আহত হয়।

    ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর এক অনুষ্ঠানে ড্রোন থেকে বিস্ফোরণ ঘটানোর দায় স্বীকার করেছেন দেশটির সাবেক এক পুলিশ কর্মকর্তা। একটি শহরের পুলিশ প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন ৫২ বছর বয়সী এই মাদুরো-বিরোধী। শনিবার রাজধানী কারাকাসে দেশটির সেনাবাহিনীর ৮১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেওয়ার সময় ওই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। এতে সাত সেনাসদস্য আহত হয়।


ওই বিস্ফোরণের পর মাদুরো দাবি করেছেন, তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে পর পর দুটি বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে।

কলম্বিয়ার রাজধানী বোগোতায় বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সালভাতর লুচেসি নামের ওই সরকারবিরোধী অ্যাক্টিভিস্ট বলেছেন, মাদুরো-বিরোধী মিলিট্যান্টদের, ভেনিজুয়েলায় যা ‘রেজিসট্যান্স’ (প্রতিরোধ) নামে পরিচিত, সামান্য সহযোগিতা নিয়ে তিনিই ওই ড্রোন হামলার ব্যবস্থা করেছেন। সরকারবিরোধী আন্দোলনের কারণে এর আগে তার জেল হয়েছিল।

তবে সালভাতর ওই হামলার ব্যাপারে যে দাবি করেছেন তা রয়টার্স খতিয়ে দেখতে সক্ষম হয়নি বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে।


লুচেসি বলেছেন, মাদুরোর বিরুদ্ধে সশস্ত্র আন্দোলনের অংশ হিসেবেই এই হামলা। তবে ওই হামলায় নিজের ঠিক কী ভূমিকা ছিল তা বলতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন লুচেসি।

সশস্ত্র সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে জানিয়ে রয়টার্সকে তিনি বলেন, ‘আমাদের একটা লক্ষ্য আছে, কিন্তু এই মুহূর্তে সেটা আমরা পুরোপুরি বাস্তবায়ন করতে সক্ষম নই।’

তবে লুচেসির এই স্বীকারোক্তি নিয়ে ভেনিজুয়েলার তথ্য মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করা হলেও কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালের নির্বাচনে দেশটির সোশ্যালিস্ট পার্টির প্রার্থী হিসেবে মাদুরোকে বেছে নেন সাবেক প্রেসিডেন্ট হুগো শ্যাভেজ। শনিবারের ওই ড্রোন হামলার জন্য মাদুরো দেশটির ডানপন্থী বিরোধী পক্ষের পাশাপাশি বিদেশি শক্তি, বিশেষ করে পার্শ্ববর্তী কলম্বিয়াকে দায়ী করেন। এ ছাড়া বরাবরের মতো আমেরিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ তো আছেই।

কিন্তু কলম্বিয়া সরকার এ ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

মঙ্গলবার রাতে টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে মাদুরো লুচেসির প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন, কলম্বিয়ার নতুন ডানপন্থী প্রেসিডেন্ট ইভান দুকীর সঙ্গে তার যোগসাজস রয়েছে।

মাদুরো বলেন, ‘ভেনিজুয়েলা পুলিশের সাবেক এক প্রধান হামলার (ড্রোন হামলা) দায় স্বীকার করেছেন। আর আজ তিনি কলম্বিয়ার নতুন প্রেসিডেন্টের শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত রয়েছেন।’

অন্যদিকে, অজনপ্রিয় একটি সংগঠন টি-শার্টও ওই হামলার দায় স্বীকার করেছে। তারাও নিজেদের ‘রেজিসট্যান্স’ এর অংশ হিসেবে পরিচয় দেয়।

তবে টি-শার্টের সদস্যদের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক আছে কি না তা স্বীকার করেননি লুচেসি।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে কারাবোবো প্রদেশের স্যান দিয়েগো মিউনিসিপ্যালেটির পুলিশের প্রধান থাকা অবস্থায় মাদুরো-বিরোধী বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে আলোচনায় আসেন লুচেসি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অমান্য করায় ওই সময় তার ১০ মাসের জেল হয়।

তাকে আবার গ্রেফতার করা হবে দেশটির গণমাধ্যমে এমন খবর ছড়িয়ে পড়লে গত আগস্টে গা-ঢাকা দেন লুচেসি।

রয়টার্সকে লুচেসি বলেন, তিনি এখন বিদেশে অবস্থান করছেন এবং মাদুরো-বিরোধীদের সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছেন। মাদুরো সরকারের পতন ঘটাতে সশস্ত্র আন্দোলনের কোনো বিকল্প নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘কোনো স্বৈরশাসকই শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা ছাড়েনি।’

Post A Comment: