দেশের ছয় জেলায় এক রাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ছয়জন নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে পাঁচজন মাদক চোরাকারবারি ও একজন ডাকাত দলের সদস্য বলে দাবি করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।
 

দেশের ছয় জেলায় এক রাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ছয়জন নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে পাঁচজন মাদক চোরাকারবারি ও একজন ডাকাত দলের সদস্য বলে দাবি করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।


গত ৩ মে ঢাকায় র‌্যাবের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী জঙ্গিবিরোধী অভিযানের মতো মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিতে বাহিনীটিকে নির্দেশ দেন। পরদিন থেকেই অভিযানে নামে র‌্যাব। আর ১৪ মে ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে মাদক বিক্রেতা ও মাদক ব্যবহারকারীদের সতর্ক করেন র‌্যাবের মহাপরিচালক বেজনীর আহমেদ।

র‌্যাবের মাদকবিরোধী সাঁড়াশি অভিযানে গত দুই দিনে তিন জেলায় র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ছয়জন নিহত হয়েছেন, যারা সবাই মাদক বিক্রিতে জড়িত বলে দাবি করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীটি।

শনিবার দিবাগত রাতেও বরিশাল, ময়মনসিংহ,  যশোর, টাঙ্গাইল, ফেনী ও দিনাজপুরে পুলিশের সঙ্গে ছয়টি বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এতে পাঁচ মাদক চোরাকারবারি নিহত ও একজন ডাকাত নিহত হয়েছেন। ঢাকাটাইমসের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর।

শনিবার দিবাগত শেষরাতে ব‌রিশা‌ল সদর উপজেলার শা‌য়েস্তাবাদ ইউনিয়নের দ‌ক্ষিণ চরআইচা গ্রা‌মের বটতলা বাজার এলাকায় মহানগর গো‌য়েন্দা (ডি‌বি) পু‌লি‌শের সঙ্গে কথিত বন্দুকযু‌দ্ধে অজ্ঞাত প‌রিচ‌য় এক যুবক নিহত হয়েছেন, যাকে ডাকাত দলের সদস্য দাবি করছে পুলিশ।

ব‌রিশাল মে‌ট্রোপ‌লিটন পু‌লি‌শের কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম-‌জানান, ‌বেশ কিছু ডাকা‌তির ঘটনার পর শায়েস্তাবাদে পুলিশের নজরদারি বাড়া‌নো হয়। গতকাল রাত তিনটার দি‌কে শা‌য়েস্তাবাদ সংলগ্ন নদীতে আলো ‌দেখতে পে‌য়ে ডি‌বি পুলিশের এক‌টি দলের স‌ন্দেহ হয়। কাছাকা‌ছি এগিয়ে গে‌লে ডাকাতরা ডি‌বি পু‌লিশ‌কে লক্ষ্য ক‌রে গু‌লি ছোড়ে। ডি‌বি পু‌লিশও পাল্টা গু‌লি ছোড়ে। কিছু সময় পর ডাকাত সদস্যরা পা‌লি‌য়ে গেলে সেখানে এক‌টি মর‌দেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশ। তার নামপরিচয় জানা যায়নি। তবে তার বয়স আনুমা‌নিক ৩৮ বছর হ‌বে।

বন্দুকযুদ্ধের পর ঘটনাস্থল থে‌কে একটি পাইপগান, একটি রামদা, একটি চাপা‌তি, আট রাউন্ড গু‌লির খা‌লি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। এছাড়া বন্দুকযুদ্ধে ডি‌বি পু‌লি‌শের এসআই দে‌লোয়ার, কনস্টেবল র‌ফিক ও হা‌ফিজ আহত হ‌য়েছেন বলে ওসি নুরুল ইসলাম জানান।
 


এছাড়া গতকাল গভীর রাতে ময়মনসিংহের মাসকান্দা এলাকায় জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ বিপ্লব নামে এক মাদক চোরাকারবারি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন পুলিশের দুই সদস্য।

ডিবি পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শহরের চরপাড়া এলাকায় কয়েকজন চোরাকারবারি মাদক ভাগাভাগি করছে এমন খবরে ডিবির রাত সোয়া দুইটার দিকে ওসি আশিকুর রহমানের নেতৃত্বে মাসকান্দা গনশার মোড় এলাকায় অভিযানে যায় পুলিশ।  পুলিশকে দেখামাত্র চোরাকারবারিরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চোড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুড়লে বিপ্লব গুলিবিদ্ধ হয়। তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানে তার মৃত্যু হয়। বন্দুকযুদ্ধে পুলিশ কনস্টেবল রাশেদুল এবং কনস্টেবল কাওছার আহত হয়। তাদের পুলিশ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহত বিল্পবের বিরুদ্ধে মাদকের একাধিক মামলা আছে বলে জানান জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশিকুর রহমান।

অন্যদিকে ফেনীতে রবিবার মধ্যরাতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক মাদক চোরাকারবারি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন দুই পুলিশ সদস্য।

পুলিশের ভাষ্যমতে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাত একটার দিকে ছাগলনাইয়া উপজেলার পাঠাননগর ইউনিয়নের পশ্চিম পাঠাননগরে অভিযান চালাতে যায় পুলিশ। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক চোরাকারবারিরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্ট গুলি ছুড়লে চোরাকারবারি আলমগীর গুলিবিদ্ধ হন। তাকে উদ্ধার করে ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আলমগীরকে মৃত ঘোষণা করেন।


বন্দুকযুদ্ধের পর ঘটনাস্থল থেকে একটি বন্দুক, তিন রাউন্ড গুলি, এক শ বোতল ফেন্সিডিল ও এক হাজার ইয়াবা উদ্ধার হয়েছে বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীটি দাবি করছে।

ছাগলনাইয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম মোর্শেদ পিপিএম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নিহত আলমগীরের বিরুদ্ধে নয়টি মামলা রয়েছে। তিনি পশ্চিম পাঠাননগরের মৃত আব্দুস সালাম ভুইয়ার ছেলে।

এদিকে দিনাজপুরের বিরলে শনিবার দিবাগত রাত তিনটায় পুলিশের সঙ্গে বন্ধুকযুদ্ধে কুখ্যাত মাদক বিক্রেতা গাল কাটা বাবু (৪০) নিহত হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে, দিনাজপুর-বিরল উপজেলা সড়কের ২ নং ফরক্কাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের সাবদাপাড়া নার্সারি এলাকায়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ টু-টু বোর রাইফেল সদৃশ্য একটি বন্ধুক, ৪টি ককটেল, ২টি সামুরাই ও ১৯৩ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে। বন্দুকযুদ্ধ আহত হন পুলিশের দুই কনস্টেবল আরিফুল ও শহিদুল ইসলাম। তাদের দিনাজপুর এম.আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহত গাল কাটা বাবু বিরল উপজেলার তেঘরা নারায়ণপুর গ্রামের মৃত আব্দুল ওহাবের ছেলে। তার বিরুদ্ধে ৯টি মামলা রয়েছে। বিরল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল মজিদ সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বন্দুকযুদ্ধে যশোরেও মারা গেছে ৩৫ বছর বয়সী অজ্ঞাত এক যুবক। পুলিশের দাবি, দুই দল মাদক বিক্রেতাদের গোলাগুলিতে ওই যুবক মারা মারা গেছেন।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) একেএম আজমল হুদা বলেন, শনিবার দিবাগত রাতে যশোর-ছুটিপুর সড়কের রঘুরামপুর গ্রাম এলাকায় মাদক বিক্রেতাদের দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি হচ্ছে। এমন খবরে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা পালিয়ে যায়।  এসময় ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ একজনকে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
ওসির দাবি, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৫০০ ইয়াবা, একটি ওয়ান  শুটারগান, এক রাউন্ড গুলি ও ৪ রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।
এর আগের রাতে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে অভয়নগরের তিন মাদক  বিক্রেতা নিহত হন।

Post A Comment: