বরিশাল মেট্রোপলিটন এলাকায় অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্রের ব্যবহার হচ্ছে। একদল সংঘবদ্ধ ডাকাতচক্র অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করে সম্প্রতি একাধিক ডাকাতির ঘটনা ঘটিয়েছে। এই চক্রের এক সদস্য মো. রাশেদ হাওলাদারকে বিদেশি অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
‘বরিশালে বেড়েছে অবৈধ অস্ত্রের ব্যবহার’ 

বরিশাল মেট্রোপলিটন এলাকায় অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্রের ব্যবহার হচ্ছে। একদল সংঘবদ্ধ ডাকাতচক্র অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করে সম্প্রতি একাধিক ডাকাতির ঘটনা ঘটিয়েছে। এই চক্রের এক সদস্য মো. রাশেদ হাওলাদারকে বিদেশি অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।


শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানিয়েছেন মেট্রোপলিটন পুলিশের (বিএমপি) ভারপ্রাপ্ত কমিশনার মাহফুজুর রহমান।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ কমিশনার মাহফুজুর রহমান বলেন, গত ২৩ এপ্রিল ডাকাত সংঘটিত ডাকাতির ঘটনায় মামলার আসামি ডাকাতচক্রের সক্রিয় সদস্য মো. রাশেদ হাওলাদারকে শুক্রবার কাউনিয়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। এসময় তাকে জিজ্ঞাসাবাদে একটি বিদেশি অটোমেটিক পিস্তল ও তিন রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় এয়ারপোর্ট থানায় অস্ত্র আইনে একটি মামলা হয়েছে।

পুলিশ কমিশনার জানান, বড় একটি ডাকাত গ্রুপ নগরীতে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্রের ব্যবহার করে সক্রিয় রয়েছে। এই গ্রুপটি নগরীর উত্তরাংশে আরও একটি ডাকাত ঘটিয়েছে। তাদের কাছে অস্ত্র আছে। এ চক্রটিকে ধরতে কাজ চলছে।

তিনি জানান, নগরীর ট্রাফিক ব্যবস্থা শৃঙ্খলায় ফেরাতে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। গত ১০ দিনে ৬০ থেকে ৭০ ভাগ মোটরসাইকেল চালক হেলমেট ব্যবহার করেছে। এই পর্যন্ত ৩ হাজার ৬৭৪টি মামলার বিপরীতে মোটরসাইকেল চালকদের প্রায় ২৮ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এক্ষেত্রে কোন পুলিশ সদস্যর ব্যক্তিগত গাড়িকেও ছাড় দেয়া হচ্ছে না।

মাদক প্রসঙ্গে পুলিশ কমিশনার মাহফুজ বলেন, নগরীতে সাম্প্রতিক সময়ে মাদকের ব্যবহার বেড়েছে। পুলিশ সদস্যরাও এর সাথে জড়িত। মাদকে সম্পৃক্ত পুলিশকেও ছাড় দেয়া হচ্ছে না। গত ১ এপ্রিল থেকে ১১ মে পর্যন্ত নগরীরত অভিযান পরিচালনা করে মোট ২ হাজার ৭৭৬ ইয়াবা, ১৫২ অ্যাম্পুল জি-মরফিন ইনজেকশন, সাড়ে ৩ কেজি গাঁজা, ৩৫০ মিলি. বিদেশি মদ, ৪ লিটার চোলাই মদ, ১টি বগি দা, ২টি দা, ১টি ছোড়া, ২টি চাকু উদ্ধার করা হয়েছে। এসব ঘটনায় ১২৫ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার ও ১০৭টি মামলা করা হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে পুলিশ কমিশনার মাহফুজুর রহমান বলেন, নগরীতে নির্বাচনী হাওয়া বইছে। অনেকের ভোটের বিষয় আছে। ঢালাওভাবে সব বিষয়ে এ্যাকশন নেয়া হলে অনেকের গায়ে আচর লাগতে পারে।

পুলিশ কমিশনার বলেন, নগরীতে ইভটিজিং রোধে এসি রুনা লায়লার নেতৃত্বে একটি টিম গঠন করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (উত্তর) হাবিবুর রহমান খান, উপ কমিশনার (দক্ষিণ) গোলাম রউফ খান, উপ-কমিশনার (ট্রাফিক) উত্তম কুমার পাল, উপ-কমিশনার (ডিবি) মোয়াজ্জেম হোসেন ভুইয়া, সহকারী কমিশনার (ডিবি) নাছির উদ্দিন মল্লিক, সহকারী কমিশনার খায়রুল আলম প্রমুখ।

Post A Comment: