আপনার প্রিয় খাবার কি এটা জিজ্ঞাসা করলেই অনেক বলেন ‘ডাল ভাত’। তবে আমাদের দেশে কিন্তু ডাল বলতেই পাতলা ডাল, ঘন ডাল, ডাল চচ্চড়ি, ডাল ভর্তা। এর বাহিরে আমরা ডালের ব্যবহার একটু কমই জানি। আর খেসারী, মসুর, মাসকালাই, মটর, মুগ, ছোলা ইত্যাদি অনেক রকম ডাল আমাদের কাছে খুবই পরিচিত। মসলাদার করে রান্না ডাল ও ডালের হালুয়াও আমাদের দেশে অনেক জনপ্রিয়। তেমনি সহজ একটি ডালের রেসিপি আপনাদের সাথে আজ জানাবো সেটি হচ্ছে ডাল মাখনি। ডাল মাখনি মূলত ভারতীয় খাবার। তবে এই খাবারটি পোলাও, বিরিয়ানি কিংবা নান রুটি দিয়ে খেতে অনেক সুস্বাদু।

 

আপনার প্রিয় খাবার কি এটা জিজ্ঞাসা করলেই অনেক বলেন ‘ডাল ভাত’। তবে আমাদের দেশে কিন্তু ডাল বলতেই পাতলা ডাল, ঘন ডাল, ডাল চচ্চড়ি, ডাল ভর্তা। এর বাহিরে আমরা ডালের ব্যবহার একটু কমই জানি। আর খেসারী, মসুর, মাসকালাই, মটর, মুগ, ছোলা ইত্যাদি অনেক রকম ডাল আমাদের কাছে খুবই পরিচিত। মসলাদার করে রান্না ডাল ও ডালের হালুয়াও আমাদের দেশে অনেক জনপ্রিয়। তেমনি সহজ একটি ডালের রেসিপি আপনাদের সাথে আজ জানাবো সেটি হচ্ছে ডাল মাখনি। ডাল মাখনি মূলত ভারতীয় খাবার। তবে এই খাবারটি পোলাও, বিরিয়ানি কিংবা নান রুটি দিয়ে খেতে অনেক সুস্বাদু।


উপকরণ:


বুটের ডাল ১/২ কাপ

মুগ ডাল ১/৪ কাপ

রাজমা ১/৪ কাপ

আদা বাটা ১ চা চামচ

রসুন বাটা ১ চা চামচ

টক দই আধা কাপ বা সিকি কাপ ক্রিম (ইচ্ছে হলে দিতে পারেন)

মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ

লবণ স্বাদ অনুসারে

এলাচ ২টি

দারুচিনি ২ টুকরো

চিনি ১ টেবিল চামচ

মাখন ২ টেবিল চামচ

প্রণালি: সারারাত ডাল ভিজিয়ে রেখে রান্নার পূর্বে সেদ্ধ করে নিতে হবে। রাজমা আলাদা একটি পাত্রে সিদ্ধ করে নিতে নিন। এবার কড়াইয়ে মাখন দিয়ে পেঁয়াজ লাল হওয়া পর্যন্ত নাড়ুন, লাল হলে সব বাটা মশলা, গুঁড়া মরিচ ও গুঁড়া মশলা দিয়ে কষিয়ে নিতে হবে। শেষে ডাল, লবণ ও চিনি দিয়ে একটু নেড়ে পানি দিয়ে দিন। টক দই বা ক্রিম দিয়ে ভালোভাবে নাড়তে হবে। পছন্দ মতো মাখা মাখা হলে অন্য একটি পাত্রে মাখন দিয়ে শুকনো মরিচ ফোড়ন দিয়ে সদ্য রান্না করা ডালের ওপর ঢেলে দিন। এবার আপনি ডাল মাখনি খাবার টেবিলে পরিবেশন করতে পারেন। পোলাও, বিরিয়ানি কিংবা নান রুটি দিয়ে খেতে পারেন মজাদার ডাল মখনি।

Post A Comment: