বেশ কিছুদিন ধরেই উজবেকিস্তানের বুখারা গ্রামে একের পর এক চুরি হচ্ছিল গবাদি পশু। গ্রামবাসী শত চেষ্টা করেও ধরতে পারছিলেন চোরদের। কেউ যেন ধরতে না পারে, সেজন্য পশু চোরে জড়িত চক্রটিও বেশ সতর্কভাবে কাজ চালিয়ে যায়। অবশেষে অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। সেটি হলো পুলিশের চোখ ফাঁকি দেয়ার জন্য চোরের দল চুরি যাওয়া পশু দামি একটি ম্যালিবু শেভ্রলে গাড়িতে করে আনা নেওয়া করত।
দামি গাড়িতে করে গরু চুরি 

বেশ কিছুদিন ধরেই উজবেকিস্তানের বুখারা গ্রামে একের পর এক চুরি হচ্ছিল গবাদি পশু। গ্রামবাসী শত চেষ্টা করেও ধরতে পারছিলেন চোরদের। কেউ যেন ধরতে না পারে, সেজন্য পশু চোরে জড়িত চক্রটিও বেশ সতর্কভাবে কাজ চালিয়ে যায়। অবশেষে অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। সেটি হলো পুলিশের চোখ ফাঁকি দেয়ার জন্য চোরের দল চুরি যাওয়া পশু দামি একটি ম্যালিবু শেভ্রলে গাড়িতে করে আনা নেওয়া করত।


জানা গেছে, ম্যালিবু শেভ্রলের গাড়িটি প্রায়ই ওই গ্রামে আসা যাওয়া করতো। দামি গাড়ি হওয়ায় কেউ বিষয়টি সন্দেহ করেনি। কেউ প্রশ্নও করেনি প্রায়ই কেন আসে এই গাড়ি, আর কার কাছে আসে।

গত কয়েকদিন ধরে ম্যালিবু শেভ্রলে গাড়ির পেছনের জানালা দিয়ে মুখ বের করে থাকা একটি বাছুরের ছবি প্রকাশিত হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। পরে সেটি দেশটিতে ভাইরাল হয়ে যায়।

ফেসবুকে একজন ক্যাপশন দিয়েছেন, ‘দামি গাড়িতে চড়ে গরুটি অন্তত খুশি"। কেউ লিখেছেন, ‘ম্যালিবু গাড়িতে করে বিয়ের কনের মত এসেছে বাছুর।’

জেনারেল মোটরসের এই অ্যামেরিকান ব্রান্ড ম্যালিবু শেভ্রলে উজবেকিস্তানে ভীষণ জনপ্রিয়। শেভ্রলের দাম বিশ্বব্যাপী কমে গেলেও ৩০ হাজার মার্কিন ডলারের বেশি দামের, মালিবু শেভ্রলে এখনো বেশ দামি। আর উজবেকিস্তানের বাজারে এটি সবচেয়ে দামি গাড়ির অন্যতম।

পুলিশ বলছে, চুরি করা গবাদি পশু সীমান্তে বিক্রি করে দিত সংঘবদ্ধ চোরের দল। আর গাড়িটিও চুরি করা গাড়ি। তবে গাড়ির মালিকের সন্ধান এখনো পায়নি পুলিশ।

Post A Comment: