নেপালের কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের ঘটনায় নিহত ২৬ জনের মধ্যে বাকি থাকা তিনজনের লাশ বৃহস্পতিবার বিকেলে বিমান বাংলাদেশের ফ্লাইটে ঢাকায় আসছে।
শনাক্ত হওয়া ৩ জনের মরদেহ ফিরছে বৃহস্পতিবার 

নেপালের কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের ঘটনায় নিহত ২৬ জনের মধ্যে বাকি থাকা তিনজনের লাশ বৃহস্পতিবার বিকেলে বিমান বাংলাদেশের ফ্লাইটে ঢাকায় আসছে।


বুধবার রাতে বিষয়টি  নিশ্চিত করেছেন ইউএস-বাংলার মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) কামরুল ইসলাম।

মরদেহ তিনটি হচ্ছে আলিফউজ্জামান, মো. নজরুল ইসলাম ও পিয়াস রায়ের।

কামরুল ইসলাম বলেন, ‘নিহত ২৬ জনের মধ্যে গত সোমবার চিহ্নিত ২৩ জনের মরদেহ দেশে নেপাল থেকে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হয়। কিন্তু তখন তিনজনকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। তবে আজ বুধবার তাদেরকে চিহ্নিত করা সম্ভব হয়েছে। ফরেনসিক টেস্টের মাধ্যমে চিহ্নিত করা হয়েছে, ডিএনএ টেস্টের প্রয়োজন হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘বৃহস্পতিবার বিমান বাংলাদেশের বিজি০৭২ কাঠমান্ডু-ঢাকা নিয়মিত ফ্লাইটে নিহত তিনজনের মরদেহ আনা হবে। কাঠমান্ডু থেকে দেড়টার দিকে রওনা দিবে এবং ঢাকায় ৩টা ১৫ মিনিটের দিকে এসে পৌঁছাবে।’

ইউএস বাংলার এই কর্মকর্তা আরো জানান, ‘মরদেহগুলো বিমানবন্দর থেকে সরকারের উচ্চপদস্থ ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। মরদেহগুলো বিমানবন্দরের ৮নং গেট দিয়ে বের করা হবে।’

এসময় তিনি জানান, ‘তিনটি মরদেহ ঢাকার বাইরে যাবে। এর মধ্যে আলিফউজ্জামানের লাশ খুলনায়, মো. নজরুল ইসলামের লাশ রাজশাহী এবং পিয়াস রায়ের লাশ বরিশালে যাবে।’

উল্লেখ্য, ঢাকা থেকে ৭১ আরোহী নিয়ে গত ১২ মার্চ দুপুরে নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে নামার সময় ইউএস-বাংলার ফ্লাইট বিএস-২১১ রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ে এবং আগুন ধরে যায়।

এতে বিমানের ৫১ আরোহী নিহত হন। উড়োজাহাজে চার ক্রুসহ ৩৬ বাংলাদেশি ছিলেন। এদের ২৬ জনই নিহত হয়েছেন। আহত হন ১০ জন।

সোমাবার শনাক্ত হওয়া ২৩ বাংলাদেশির মরদেহ ঢাকায় আনা হয়। আর্মি স্টেডিয়ামে জানাজা শেষে পরিবারের কাছে মরদেহগুলো হস্তান্তর করা হয়।

Post A Comment: