একটা বয়সের পর বিশেষ করে ত্রিশ পার হওয়ার পর ত্বকের স্বাভাবিক ইলাস্টিসিটি কমে যাওয়া খুবই স্বাভাবিক। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে আমাদের দেশের আবহাওয়া ও বিভিন্ন কারণে অনেকেই ত্রিশ পার হওয়ার আগেই এই সমস্যায় পড়ে যান। এর মূল কারণ হচ্ছে ত্বকের সঠিক যত্ন না হওয়া, অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন ও অসুস্থতা আবহাওয়া ইত্যাদি। তবে ছোট্ট কিছু পরিবর্তের মাধ্যমে বয়স ত্রিশের পরও ত্বকের টানটান ভাব ধরে রাখা যায় খুব সহজেই। এর জন্য আপনাকে মেনে চলতে হবে কিছু বিষয়। নিজের জন্য বের করুন কিছুটা সময়। আর ত্বকের নিন কিছু যত্ন। তাহলে ত্রিশের পরও ত্বকে ধরে রাখতে পারবেন তারুণ্য। আসুন তাহলে জেনে নিই ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখার জন্য আপনাকে কি কি করতে হবে।
 

একটা বয়সের পর বিশেষ করে ত্রিশ পার হওয়ার পর ত্বকের স্বাভাবিক ইলাস্টিসিটি কমে যাওয়া খুবই স্বাভাবিক। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে আমাদের দেশের আবহাওয়া ও বিভিন্ন কারণে অনেকেই ত্রিশ পার হওয়ার আগেই এই সমস্যায় পড়ে যান। এর মূল কারণ হচ্ছে ত্বকের সঠিক যত্ন না হওয়া, অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন ও অসুস্থতা আবহাওয়া ইত্যাদি। তবে ছোট্ট কিছু পরিবর্তের মাধ্যমে বয়স ত্রিশের পরও ত্বকের টানটান ভাব ধরে রাখা যায় খুব সহজেই। এর জন্য আপনাকে মেনে চলতে হবে কিছু বিষয়। নিজের জন্য বের করুন কিছুটা সময়। আর ত্বকের নিন কিছু যত্ন। তাহলে ত্রিশের পরও ত্বকে ধরে রাখতে পারবেন তারুণ্য। আসুন তাহলে জেনে নিই ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখার জন্য আপনাকে কি কি করতে হবে।


লুটেইন সমৃদ্ধ খাবার: গবেষণায় দেখা গেছে লুটেইন নামক অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ত্বকের ইলাস্টিসিটি ধরে রাখতে বিশেষভাবে সহায়ক। আর লুটেইনের মূল উৎস হচ্ছে সবুজ শাক, ডিমের কুসুম, স্পিনাচ(পালং শাক) ইত্যাদি।

পরিমিত প্রোটিন গ্রহণ: প্রোটিন সমৃদ্ধ খাদ্য ত্বকের ইলাস্টিসিটি ধরে রাখতে সহায়তা করে। এছাড়াও প্রোটিন ত্বকের পাশাপাশি চুল পাকা রোধেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। মাছ, ডিম, দুধ, পিনাট বাটার, সামুদ্রিক মাছ রাখুন খাদ্যতালিকায়।

ফল ও সবজি খান: ফল ও শাকসবজির ভিটামিন দীর্ঘ সময় ত্বকের টানটান ভাব ধরে রাখতে সহায়তা করে। এবং বয়সের ছাপ ধীরে পড়ে। স্ট্রবেরি, আম, মিষ্টি আলু, ব্রকলি, গাজর ইত্যাদি প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় রাখার চেষ্টা করুন।

পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান: ত্বকের ইলাস্টিসিটি ত্রিশের পরও বজায় রাখতে প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পানের অভ্যাস গড়ে তুলুন। দেহ ও ত্বক যতটা হাইড্রেট থাকবে ত্বকের ইলাস্টিসিটি তত ভালো থাকবে। নারীদের জন্য ৯ কাপ পানি ও পুরুষের জন্য ১২.৫ কাপ পানি প্রতিদিন পান করা জরুরি।

সূর্যের রশ্মি থেকে সাবধান: যতটা সম্ভব সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করুন। সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি ত্বকের টিস্যুর স্থায়ীভাবে ক্ষতি করে যার কারণে বয়সের ছাপ পড়ে যায় দ্রুত। ত্বক হারায় স্বাভাবিক ইলাস্টিসিটি। তাই সকাল ৯টার পর থেকে বিকেল ৪টার রোদ এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন এবং নিয়মিত ভালো কোনো সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন।

ধূমপান বন্ধ করুন: ধূমপান শুধু দেহের অভ্যন্তরীণ অঙ্গপ্রত্যঙ্গের জন্যই ক্ষতিকর নয়, এটি বাইরের ত্বকের জন্যও বেশ ক্ষতিকর। ধূমপানের ফলে ত্বক ইলাস্টিসিটি হারাতে থাকে এবং চামড়া ঝুলে পড়ার প্রবনতা দেখা দেয়। তাই আজই ধূমপান বন্ধ করুন।

নিয়মিত ব্যায়াম করুন: ত্বকের টানটান ভাব এবং প্রাণবন্ততা ধরে রাখতে ব্যায়ামের বিকল্প নেই। খুব বেশি কঠিন ব্যায়াম নয় সাধারণ ব্যায়াম যাতে ত্বকের নিচে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায় তাতেই ত্বকের ইলাস্টিসিটি বজায় থাকবে চিরকাল।

Post A Comment: