যৌক্তিক ও যুগোপযোগী ‘চিকিৎসাসেবা আইন’ এবং ‘বেসরকারি মেডিকেল কলেজ স্থাপন ও পরিচালনা’ আইন প্রণয়নের ওপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করেছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই।
 

যৌক্তিক ও যুগোপযোগী ‘চিকিৎসাসেবা আইন’ এবং ‘বেসরকারি মেডিকেল কলেজ স্থাপন ও পরিচালনা’ আইন প্রণয়নের ওপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করেছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই।


বুধবার এফবিসিসিআইর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার মতিঝিলের ফেডারেশন ভবনে এফবিসিসিআই স্ট্যান্ডিং কমিটি রিলেটিং টু মিনিস্ট্রি অব হেলথ অ্যান্ড ফ্যামিলি ওয়েলফেয়ার (মেডিকেল অ্যাডুকেশন অ্যান্ড ফ্যামিলি ওয়েলফেয়ার ডিভিশন)-এর এক সভা হয়।

সভায় আলোচকবৃন্দ খসড়া ‘চিকিৎসাসেবা আইন’ এবং ‘বেসরকারি মেডিকেল কলেজ স্থাপন ও পরিচালনা’ আইন দুটিকে যৌক্তিক ও যুগোপযোগী করে আইন হিসেবে পাস করার ওপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করেন। বর্তমানে আইন দুটির খসড়া চূড়ান্ত করার লক্ষ্যে মন্ত্রণালয়ে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে জানিয়ে এফবিসিসিআইর পক্ষ থেকে বলা হয়, দেশ ও জনগণের স্বার্থে এফবিসিসিআই নেতৃবৃন্দ এ আইন দুটি সংশ্লিষ্ট সকলের জন্য সহনীয় করে চূড়ান্ত রূপ দেয়ার আহ্বান জানান।

আলোচকবৃন্দ বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ খাতের মত ‘বিশেষ আর্থিক খাত’ গঠনের ওপর জোর দেন। এক্ষেত্রে তারা সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণপ্রাপ্তির সুবিধা এবং ঋণ পরিশোধের মেয়াদ দীর্ঘ করার দাবি জানান। এছাড়াও সভায় মেডিকেল কলেজ পরিচালনার ক্ষেত্রে কর অব্যাহতির অনুরোধ জানানো হয়।

বক্তারা দেশের সকল নাগরিকের ‘স্বাস্থ্য বীমা’ চালু করার ওপরও গুরুত্ব আরোপ করেন।

কমিটির চেয়ারম্যান এ বিএম হারুন সভায় সভাপতিত্ব করেন। স্ট্যান্ডিং কমিটির ডাইরেক্টর ইন-চার্জ প্রীতি চক্রবর্তী, এফবিসিসিআইর সহ-সভাপতি মুনতাকিম আশরাফসহ কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, গ্রীন লাইফ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, ডেল্টা হাসপাতাল লিমিটেড, রংপুর কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ, জাহান আরা ক্লিনিক লিমিটেড ও হেলথ সিটিসহ বিভিন্ন মেডিকেল চিকিৎসা শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ও পরিচালকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Post A Comment: