দেশের শীর্ষ মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোনের বিরুদ্ধে ভ্যাট ফাঁকির অভিযোগ তুলে ৭ কোটি ২৫ লাখ ৭৩ হাজার টাকা ভ্যাট পরিশোধে চূড়ান্ত দাবিনামা জারি করা হয়েছে।
সরকার টাকা পেলে অবশ্যই দেব: গ্রামীণফোন 

দেশের শীর্ষ মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোনের বিরুদ্ধে ভ্যাট ফাঁকির অভিযোগ তুলে ৭ কোটি ২৫ লাখ ৭৩ হাজার টাকা ভ্যাট পরিশোধে চূড়ান্ত দাবিনামা জারি করা হয়েছে।


সম্প্রতি জারি করা এ দাবিনামার বিষয়ে গ্রামীণফোনের হেড অব এক্সটারনাল কমিউনিকেশন সৈয়দ তালাত কামাল  বলেন, আমরা এনবিআরের নোটিশ পেয়েছি। বর্তমানে আমরা নোটিশটি পর্যালোচনা করছি। সরকার টাকা পেলে অবশ্যই গ্রামীণফোন দেবে।

তালাত কামাল বলেন, গ্রামীণফোন প্রতি বছর সরকারকে হাজার হাজার কোটি টাকা ট্যাক্স দিয়ে আসছে। দেশের টেলিকম সেক্টরের এ বৃহৎ করদাতা প্রতিষ্ঠান কখনো ইনটেনশনালি কর ফাঁকি দেয় না। তারপরও এনবিআর যেহেতু প্রায় ৭ কোটি টাকা বকেয়া ভ্যাট পরিশোধের জন্য দাবিনামা জারি করেছে, আমরা তা পর্যালোচনা করছি। এতটুকু বলতে পারি সরকার যদি ট্যাক্স বাবদ ন্যায্য কোনও অর্থ পায় গ্রামীণফোন অবশ্যই তা পরিশোধ করবে।

জানা গেছে, প্রায় সাড়ে ৪৮ কোটি টাকা স্থান ও স্থাপনা ভাড়ার বিপরীতে প্রযোজ্য ভ্যাট পরিশোধ না দেওয়ার অভিযোগ তুলে, বৃহৎ করদাতা ইউনিট (এলটিইউ-ভ্যাট) বিভাগ চলতি সপ্তাহে সোয়া সাত কোটি টাকা ভ্যাট পরিশোধের জন্য চূড়ান্ত দাবিনামা পাঠায় গ্রামীণফোনে।

দাবিনামায় আগামী তিন মাসের মধ্যে ওই অর্থ পরিশোধ করতে বলা হয়েছে। অন্যথায় ভ্যাট আপিলাত ট্রাইব্যুনালে আপিল কিংবা উচ্চ আদালতে রিট করতে পারবে। এর কোনো কিছুই করা না হলে সংশ্লিষ্ট বিভাগ আরো কিছু প্রক্রিয়া শেষে অর্থ আদায়ে চাইলে প্রতিষ্ঠানটির ব্যাংক হিসাব জব্দ করতে পারবে।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে গ্রামীণফোনকে শুনানিতে ডাকা হলে প্রতিষ্ঠানটি চিঠি দিয়ে এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানের বক্তব্য তুলে ধরে। চিঠিতে বিভিন্ন যুক্তি তুলে ধরে এর উপর ভ্যাট প্রযোজ্য হবে না বলে উল্লেখ করা হয়।

Post A Comment: