হঠাৎ করেই প্রসব যন্ত্রণা উঠেছিল। কিন্তু কোনও স্ট্রেচার বা হুইলচেয়ার না থাকায় ২৫ বছরের এক নারীকে জোর করেই হেঁটেই যেতে বাধ্য করা হয়েছিল। আর তাতেই ঘটল বিপত্তি।
দাঁড়িয়ে সন্তান প্রসব, মেঝেতে পড়ে নবজাতকের মৃত্যু 

হঠাৎ করেই প্রসব যন্ত্রণা উঠেছিল। কিন্তু কোনও স্ট্রেচার বা হুইলচেয়ার না থাকায় ২৫ বছরের এক নারীকে জোর করেই হেঁটেই যেতে বাধ্য করা হয়েছিল। আর তাতেই ঘটল বিপত্তি।


হেঁটে যাওয়ার সময়ে হাসপাতালের করিডোরেই প্রসব হয়ে যায় এবং নবজাতক মাটিতে পড়ে গিয়ে সেখানেই মৃত্যু হয় তার। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশে।

ঘোড়াডোংরির বাসিন্দা নীলু বর্মার প্রসব যন্ত্রণা উঠলে প্রথমে তার স্বামী তাকে ঘোড়াডোংরির প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যান। কিন্তু সেদিন সরকারি ছুটি থাকায় কোনও ডাক্তার উপস্থিত ছিলেন না। বাধ্য হয়ে অ্যাম্বুলেন্সে করে স্ত্রীকে তিনি নিয়ে আসেন বেতুল জেলা হাসপাতালে। কিন্তু সেখানেই কর্মীদের গাফিলতির জন্যে মত্যু হয় বর্মা দম্পতির সন্তানের। তবে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে নবজাতকের দেহ পাঠানো হয়েছে ময়না তদন্তের জন্যে।

বেতুল জেলা হাসপাতালের সিভিল সার্জেন ডা. এ কে বরাঙ্গ জানিয়েছেন, প্রসব যন্ত্রণায় কাতর নারীকে হেঁটে লেবার রুমে যেতে বলা অমানবিক। হাসপাতাল কর্মীরা অন্যায় করেছেন। এই গাফিলতি মেনে নেয়া হবে না। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তদন্ত করা হবে।

Post A Comment: