দেশের বিভিন্ন এলাকায় চলমান মৃদু ও মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ কেটে যাচ্ছে। রাত ও দিনের তাপমাত্রা বাড়ার পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এতে শীত এবারের মতো বিদায় হবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।
শীতের বিদায়ী বার্তা 

দেশের বিভিন্ন এলাকায় চলমান মৃদু ও মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ কেটে যাচ্ছে। রাত ও দিনের তাপমাত্রা বাড়ার পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এতে শীত এবারের মতো বিদায় হবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।


এবার শীতের আগমন ঘটে অনেকটা পরে। ডিসেম্বরজুড়ে শীত ছিল না বললেই চলে। তবে জানুয়ারির শুরুর দিকে কয়েক দিন সারাদেশে প্রচণ্ড ঝাঁকুনি দিয়ে যায় শীত। এমনকি তাপমাত্রা কমে ৫০ বছরের রেকর্ড ভঙ্গ করে।

তবে এই শীতের মাত্রা বেশি দিন ছিল না। জানুয়ারির শেষ দিকে আরেকটি তীব্র শৈত্যপ্রবাহ আসছে এমন আভাস পাওয়া গেলেও শেষ পর্যন্ত তা এতটা তীব্র অনুভূত হয়নি। 

বুধবার সকালে আবহাওয়া অধিদপ্তরের সর্বশেষ পূর্বাভাসে বলা হয়, যশোর, নীলফামারী, দিনাজপুর, সৈয়দপুর, পঞ্চগড়, কুড়িগ্রাম ও শ্রীমঙ্গলের ওপর দিয়ে যে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে তা কমতে শুরু করেছে।

এছাড়া সারাদেশে রাত এবং দিনের তাপমাত্রা এক থেকে দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আজ সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে।

অন্যদিকে মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও-কোথাও মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

আবহাওয়ার সিনপটিক অবস্থায় বলা হয়, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ বিহার ও তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমির স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

আজ ঢাকায় সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৫টা ৪৪ মিনিটে এবং আগামীকাল সূর্যোদয় ভোর ৬টা ৪০ মিনিটে।

Post A Comment: