জেগো দিল বিশাল, হেগো বাড়ি বরিশাল’- বরিশালের বিখ্যাত এই উক্তি সাঁটানো দেয়ালে। শুধু বরিশাল নয়; চিটাগাং, সিলেট, ঢাকা, নোয়াখালী, বগুড়াসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের জনপ্রিয় সব বাণীতে সাজানো সবকটি দেয়াল। বাণীগুলো পড়তে পড়তেই সব অঞ্চলের বিখ্যাত ও মজাদার খাবার চেখে দেখতে পারবেন এখানে। বলছি আঞ্চলিক খানার কথা।
আঞ্চলিক খাবারের স্বাদে... 

‘জেগো দিল বিশাল, হেগো বাড়ি বরিশাল’- বরিশালের বিখ্যাত এই উক্তি সাঁটানো দেয়ালে। শুধু বরিশাল নয়; চিটাগাং, সিলেট, ঢাকা, নোয়াখালী, বগুড়াসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের জনপ্রিয় সব বাণীতে সাজানো সবকটি দেয়াল। বাণীগুলো পড়তে পড়তেই সব অঞ্চলের বিখ্যাত ও মজাদার খাবার চেখে দেখতে পারবেন এখানে। বলছি আঞ্চলিক খানার কথা।


ধানমন্ডির শংকর বাসস্ট্যান্ডের ভেতর দিয়ে এগিয়ে হাতের বামে গেলেই দেখা মিলবে আলী হোসেন স্কুলের। সেটা পেরিয়ে আরেকটু সামনে আঞ্চলিক খানা রেস্টুরেন্টটি। চুইঝাল খেতে খুলনা না গিয়ে ধানমন্ডির শংকরে চলে যেতে পারেন! সিলেটের স্পেশাল সাতকড়ায় গরু ভুনার দেখাও মিলবে এখানে। রয়েছে কুমিল্লার রসমালাই ও কুষ্টিয়ার বিখ্যাত কুলফি মালাই। অঞ্চলভেদে বিখ্যাত সব খাবার দিয়ে সাজানো আঞ্চলিক খানার ফুড মেন্যু।


আঞ্চলিক খানার স্বত্বাধিকারী রোমিও স্কান্দার জানালেন, ঘুরতে ও খেতে ভালোবাসেন তিনি। ফলে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যেমন যাওয়া হয়েছে, তেমনি প্রতিটি অঞ্চলের বিখ্যাত সব খাবারের স্বাদও নেওয়া হয়েছে। জানান, একবার শুধু খুলনা গিয়েছিলেন চুই বিফ খাওয়ার জন্য! পরবর্তীতে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের বিখ্যাত সব খাবার একই ছাদের নিচে নিয়ে আসার ইচ্ছে থেকেই শুরু করেন আঞ্চলিক খানার কার্যক্রম। ব্যতিক্রমী কনসেপ্ট, খাবারের চমৎকার স্বাদ ও হাতের নাগালে থাকা দামের কারণে ভোজনরসিকদের পছন্দের তালিকায় জায়গা করে নেয় আঞ্চলিক খানা। রোমিও জানান, চলতি মাসেই আঞ্চলিক খানা পথচলার এক বছর পূর্ণ করলো।

পছন্দের খাবার অর্ডার করলেই মাটির সরায় চলে আসবে খাবার। আঞ্চলিক খানায় রয়েছে ঢাকার স্পেশাল মটকি বিরিয়ানি, নোয়াখালীর স্পেশাল শসা নারকেলে চিংড়ি ও ছোট মাছের মরিচ খোলা, চট্টগ্রামের মেজবান মাংস ও কালাভুনা, খুলনার স্পেশাল চুই বিফ ও চিকেন, সিলেটের বিখ্যাত সাতকড়ায় মাংস এবং আদিবাসী স্পেশাল ব্যাম্বু বিরিয়ানি।

আরও পাবেন থানকুনি পাতা ভর্তা, লোনা ইলিশ ভর্তা, চেপা শুটকি ভর্তা, কলার মোচা ভাজা, কচুর শাক দিয়ে ইলিশের মাথা ভুনাসহ আরও অনেক আইটেম। খাবারের শেষে ডেসার্ট হিসেবে খেতে পারেন কুমিল্লার বিখ্যাত রসমালাই অথবা কুষ্টিয়ার কুলফি মালাই। রয়েছে সুস্বাদু ডাবের লাচ্ছি।

বিখ্যাত উক্তি দিয়ে রেস্টুরেন্ট সাজানোর আইডিয়া সম্পর্কে জানতে চাইলে রোমিও জানালেন, দেশের প্রতিটি অঞ্চলেই রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন প্রচলিত বচন। নিজ এলাকার বিখ্যাত খাবারের পাশাপাশি এসব বাণীর সঙ্গেও জড়িয়ে আছে স্থানীয়দের আবেগ ও ভালোবাসা। যেমন ‘জেগো দিল বিশাল, হেগো বাড়ি বরিশাল’ এই একটি কথা দিয়েই যেন বরিশালের অধিবাসীরা প্রকাশ করতে পারে নিজেদের পরিচয়। এই আবেগের জায়গা থেকেই অঞ্চলভেদে বিখ্যাত সব খাবারের স্বাদ তুলে আনার পাশাপাশি স্থানীয় উক্তিগুলো যোগাড় করে রেস্টুরেন্ট সাজিয়েছে আঞ্চলিক খানা। এখানে খেতে এসে সবাই চেষ্টা করেন নিজের এলাকার প্রচলিত বাণীটি খুঁজে বের করতে। অনেকে তো নিজ অঞ্চলের বাণী লেখা টেবিল ছাড়া খেতেই বসেন না!

রোমিও জানান, খাবার সম্পর্কিত বিখ্যাত উক্তিগুলো যোগাড় করতে পোহাতে রয়েছে অনেক ঝক্কি। তবুও মানুষ যখন খাবারের প্রশংসা করার পাশাপাশি আগ্রহ নিয়ে নিজ এলাকার বাণীগুলো পড়েন ও এগুলোর সঙ্গে ছবি তোলেন- তখন মনে হয় সার্থক হয়েছে কষ্ট।  

Post A Comment: