আট লাখ ডলারের বিমার টাকা পাওয়ার লোভে নিজের দুই প্রতিবন্ধী সন্তানকে হত্যা এবং অপর এক সন্তানকে নির্যাতনের অভিযুক্ত হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার এক নারী। এই অপরাধের কারণে তার কমপক্ষে পাঁচ বছর জেল হতে পারে।
বিমার টাকা পেতে দুই প্রতিবন্ধী সন্তানকে হত্যা করল মা 

আট লাখ ডলারের বিমার টাকা পাওয়ার লোভে নিজের দুই প্রতিবন্ধী সন্তানকে হত্যা এবং অপর এক সন্তানকে নির্যাতনের অভিযুক্ত হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার এক নারী। এই অপরাধের কারণে তার কমপক্ষে পাঁচ বছর জেল হতে পারে।


বিবিসির এক খবরে বলা হয়, আজ বুধবার সকালে ৫১ বছর বয়সী ম্যারি ক্র্যাবট্রিকে কুইন্সল্যান্ডের গোল্ড কোস্ট থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশের অভিযোগ, ম্যারি তার ১৮ বছর বয়সী এক মেয়েকে ২০১২ সালের সেপ্টেম্বর মাসে এবং ২৬ বছর বয়সী এক ছেলেকে ২০১৭ সালের জুলাই মাসে হত্যা করেন। উভয়ই প্রতিবন্ধী ছিল।

কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, ম্যারি আর্থিক লাভের উদ্দেশ্য এই কাজ করেছেন। তবে অভিযুক্তের আইনজীবী এমিলি লিউসে বলেছেন, তার মক্কেল জোরালোভাবে এই অভিযোগের বিরুদ্ধে লড়াই করবেন।

কুইসল্যান্ড পুলিশ জানিয়েছে, ম্যারি তার ২৫ বছর বয়সী এক কন্যাকেও নির্যাতনের অভিযোগ রয়েছে। ২০১০ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত তাকে নির্যাতন করা হয়েছে।

তবে কোনো অভিযোগের বিষয়ের বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেয়নি পুলিশ।

পুলিশ কর্মকর্তা মার্ক থম্পসন বলেন, ‘অর্থের জন্য সুপরিকল্পিত এবং নিখুঁতভাবে এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে। একজন মমতাময়ী মা কখনো এমন কাজ করতে পারেন না।’

প্রতারণার অভিযোগ

স্থানীয় গণমাধ্যম হত্যাকাণ্ডের শিকার দুই ভাই-বোনের নাম এরিন ও জোনাথন ক্র্যাবট্রি বলে উল্লেখ করেছে। পাঁচ বছরের ব্যবধানে কুইন্সল্যান্ড গোল্ড কোস্টের পৃথক স্থান থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়।

দ্য কুরিয়ার মেইল নামে একটি স্থানীয় দৈনিক জানায়, প্রথম তাদের মৃত্যু আত্মহত্যা বলে ধারণা করা হয়েছিল। পরে হত্যার আলামত পাওয়া যায়।

ম্যারি ক্র্যাবট্রির বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযোগ, আট লাখ ডলারের বিমা এবং অন্যান্য সুবিধা পাওয়ার আশায় এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে।

পুলিশ অভিযুক্ত ম্যারির বিরুদ্ধে দুটি হত্যা, নির্যাতন, যন্ত্রণাদায়ক শারীরিক ক্ষতি, জালিয়াতি, প্রতারণার চেষ্টা এবং সশস্ত্র ডাকাতির অভিযোগ এনেছেন।  

Post A Comment: