রুপচর্চা করার জন্য সবার আগে যেটা লাগে সেটা হচ্ছে ফেইস প্যাক। আর ফেইস প্যাকের অনেক রকম থাকে। অনেক সময় ফেইস প্যাক তৈরির ঝামেলার কারণে অনেক সময় ত্বকের যত্ন নেয়াও হয় না। তবে ফেইস প্যাক তৈরি যদি অনেক সহজ হয় তাহলে কিন্তু ত্বকের যত্ন নিতে কোনো সমস্যা হয় না। তাই খুব সহযে কীভাবে ফেইস প্যাক তৈরি করতে হয় এই টিপস জানাচ্ছেন রুমা ইয়াসমিন, বিউটি এক্সপার্ট, রুমাস ওয়ার্ল্ড, বিউটি পার্লার এন্ড স্পা।
সবচাইতে সহজ ফেইস প্যাক তৈরির উপায় 

রুপচর্চা করার জন্য সবার আগে যেটা লাগে সেটা হচ্ছে ফেইস প্যাক। আর ফেইস প্যাকের অনেক রকম থাকে। অনেক সময় ফেইস প্যাক তৈরির ঝামেলার কারণে অনেক সময় ত্বকের যত্ন নেয়াও হয় না। তবে ফেইস প্যাক তৈরি যদি অনেক সহজ হয় তাহলে কিন্তু ত্বকের যত্ন নিতে কোনো সমস্যা হয় না। তাই খুব সহযে কীভাবে ফেইস প্যাক তৈরি করতে হয় এই টিপস জানাচ্ছেন রুমা ইয়াসমিন, বিউটি এক্সপার্ট, রুমাস ওয়ার্ল্ড, বিউটি পার্লার এন্ড স্পা।


ফেসপ্যাক তৈরির উপকরণ:


দুই চা চামচ মধু

অর্ধেকটা লেবুর রস।

আর কিছুই না, শুধু এই দুইটিই উপাদান।

একটি বোলে মধু এবং লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে নিন। মুখ ভালো করে ধুয়ে এই মিশ্রণ মুখে লাগান।

২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। প্রথমে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে পরে ঠাণ্ডা পানির ঝাপটা দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

এতে ত্বকের রোমকূপগুলো বন্ধ হয়ে যাবে। এরপর মুখ আলতো করে ধুয়ে নিন। রাত্রে ঘুমাতে যাবার আগে এই ফেসপ্যাক ব্যবহার করতে পারেন। ব্যবহারের পর ভালো একটি ময়েশ্চারাইজার দিন মুখে।

আপনি যদি চান তাহলে এর আগে মুখে স্টিম দিতে পারেন। তবে এক্সফলিয়েট করার পর এটা মুখে দেবেন না, লেবুর রসের কারণে মুখ জ্বলতে পারে।

এই ফেসপ্যাকের উপকারিতাগুলো হলো-

ব্রণ দূর করে

মুখ পরিষ্কার করে

রোমকূপগুলো ছোট করে

ত্বক মসৃণ করে

জ্বালাপোড়া দূর করে

দীপ্তি নিয়ে আসে

ত্বকের শুকনোভাব দূর করে

Post A Comment: