গাজর এই একটি সবজি দিয়ে কতো কিছুই না আমরা করে থাকি। সালাদ, সবজি, ভাজি থেকে শুরু করে সেমাই, হালুয়া এমন কি জুস করেও খাওয়া হয়। এতো গুণে ভরা এই খাবারটি ক শুধু খেলেই উপয়ার পাওয়া যায়? মটেও না। এটি এমন সব পুষ্টি উপাদানে ভরপুর যা আমাদের দেহের বেতরে যেমন উপকার করে থাকে ঠিক তেমনি ত্বকের উপর থেকেও সমানভাবে উপকার করে থাকে। তাই আপনি আপনার ট্বকে যদি এক্সট্রা গ্লোয়িং লুক চান তাহলে চোখ বন্ধ করে ব্যবহার করতে পারেন গাজরের ফেসমাস্ক। গাজরের ফেসমাস্ক কীভাবে তৈরি করবেন এবং এর উপকারিতা সম্পর্কে আমাদের জানাবেন সায়মা জামান, বিউটি এক্সপার্ট, সায়মা বিউটি পার্লার।
এক্সট্রা গ্লোয়িং ত্বকের জন্য গাজরের ফেসমাস্ক 

গাজর এই একটি সবজি দিয়ে কতো কিছুই না আমরা করে থাকি। সালাদ, সবজি, ভাজি থেকে শুরু করে সেমাই, হালুয়া এমন কি জুস করেও খাওয়া হয়। এতো গুণে ভরা এই খাবারটি ক শুধু খেলেই উপয়ার পাওয়া যায়? মটেও না। এটি এমন সব পুষ্টি উপাদানে ভরপুর যা আমাদের দেহের বেতরে যেমন উপকার করে থাকে ঠিক তেমনি ত্বকের উপর থেকেও সমানভাবে উপকার করে থাকে। তাই আপনি আপনার ট্বকে যদি এক্সট্রা  গ্লোয়িং লুক চান তাহলে চোখ বন্ধ করে ব্যবহার করতে পারেন গাজরের ফেসমাস্ক। গাজরের ফেসমাস্ক কীভাবে তৈরি করবেন এবং এর উপকারিতা সম্পর্কে আমাদের জানাবেন সায়মা জামান, বিউটি এক্সপার্ট, সায়মা বিউটি পার্লার।


উপকরণ :



গাজর ২ টা (ভালোভাবে ছিলে সিদ্ধ করে চটকানো)।

ফ্রেস লেবুর সর ১ চা চামচ

মধু ২ টেবিল চামচ।

অলিভ অয়েল ১ টেবিল চামচ (যদি আপনার স্কিন অয়েলি হয় তাহলে অলিভ অয়েল দেওয়া থেকে বিরত থাকুন)

ব্যবহার বিধি:


সব উপাদান একসাথে সুন্দর মসৃণ পেস্ট বানিয়ে নিন।

আপনার মুখ পরিষ্কার করে ধোয়ে নিন।

তারপর  পরিষ্কার মুখের ত্বকে অ্যাপ্লাই করুন।

এভাবে রেখে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন।

তারপর হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

সপ্তাহে কমপক্ষে ২ বার এই ফেসমাস্ক ব্যবহার করেই দেখুন আপনার ত্বক উজ্জ্বল হতে শুরু করবে।

গাজরের মাস্কের উপকারিতা:


গাজরের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট অ্যান্টি-এজিং হিসেবে কাজ করবে।

গাজর ত্বকের মশ্চারাইজার ধরে রাখবে।

গাজর ত্বকের কোষ পুনর্নবীকরণ প্রক্রিয়ার গতি বাড়াতে সাহায্য করে।

গাজরের ভিটামিন এ ও বিটা ক্যারোটিন ত্বককে উজ্জ্বল করে।

Post A Comment: