সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় স্কুলছাত্রীর সঙ্গে বখাটেপনার দায়ে এক যুবককে তিন মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। আব্দুল লতিফ (২৩) নামের ওই যুবক উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের বিরেন্দ্রনগর গ্রামের সুরত আলীর ছেলে।
সুনামগঞ্জে স্কুলছাত্রীর সঙ্গে বখাটেপনার দায়ে যুবকের কারাদণ্ড 

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় স্কুলছাত্রীর সঙ্গে বখাটেপনার দায়ে এক যুবককে তিন মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। আব্দুল লতিফ (২৩) নামের ওই যুবক উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের বিরেন্দ্রনগর গ্রামের সুরত আলীর ছেলে।


আজ বুধবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে বসা ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই দণ্ড ঘোষণা করে।

পুলিশ, বাগলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রদীপ রায় ও স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার বাগলী উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে স্কুলে আসাণ্ডযাওয়ার পথে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল যুবক লতিফ। বিদ্যালয় থেকে ওই ছাত্রীর বাড়ি ইন্দ্রপুরের দূরত্ব প্রায় দেড় কিলোমিটার। প্রতিদিন পায়ে হেঁটে সে বিদ্যালয়ে আসাণ্ডযাওয়া করে।

আজ বুধবার সকাল নয়টার দিকে স্কুলে যাওয়ার পথে ওই ছাত্রীকে আবার প্রেমের প্রস্তাব দেয় আব্দুল লতিফ। এতে ছাত্রীটি কিছুটা ক্ষিপ্ত হলে তার ওড়না নিয়ে যায় এমনকি তাকে মারধর করে লতিফ। এ সময় মেয়েটি ভয়ে চিৎকার করলে পাশের গ্রামের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে। আব্দুল লতিফকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে থানায় খবর দেয় লোকজন।

পুলিশ জানায়, ট্যাকেরঘাট পুলিশ ক্যাম্পের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) ইমাম হোসেন ঘটনাস্থলে গিয়ে আব্দুল লতিফকে আটক করে বিকাল ৫টায় তাহিরপুর থানায় নিয়ে যান। পরে রাত সাড়ে সাতটার দিকে তাকে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হয়।
ভ্রাম্যমাণ আদালত আব্দুল লতিফ (২৩) তিন মাসের কারাদণ্ড দেন।

তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নন্দন কান্তি ধর এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

Post A Comment: