দীর্ঘ এক যুগ পর সিলেটের সুরমা নদীর তীরে গড়ে উঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর থেকে শুরু হওয়া এ অভিযান চলে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত। অভিযানকালে বুলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দেওয়া হয় নদীর তীরে গড়ে উঠা ১৫টি অবৈধ দোকান।
 Faria-members-set-fire-to-Ittefaq-in-Pirojpur

দীর্ঘ এক যুগ পর সিলেটের সুরমা নদীর তীরে গড়ে উঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর থেকে শুরু হওয়া এ অভিযান চলে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত। অভিযানকালে বুলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দেওয়া হয় নদীর তীরে গড়ে উঠা ১৫টি অবৈধ দোকান।


পরে নগরীর এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনের রাস্তার উপর অবৈধভাবে গড়ে তোলা স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। নগরীর নবাব রোড, শেখঘাট এলাকার রাস্তার উপর গড়ে উঠা অবৈধ দোকান-ঘরও উচ্ছেদ করা হয় এদিন।

সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ২০০৪ সালে তৎকালীন অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রী মরহুম এম. সাইফুর রহমানের নির্দেশে সুরমা নদীর দুই পাড়ে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করে নির্মাণ করা হয় ওয়াক ওয়ে। কারাগারে আমি যখন বন্দি ছিলাম এই সুযোগে অবৈধ দখলদাররা আবারো নদীর পাড়ে দোকান-ঘর স্থাপন শুরু করে।

মেয়র আরো বলেন, এখানে আর কোনো অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করতে দেওয়া হবে না। আগের ওয়াক ওয়ের সাথে সংযোগ করে এখানে নির্মাণ করা হবে ওয়াক ওয়ে।

অভিযানে সিসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব, সচিব বদরুল হক, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শরিফুজ্জামান, প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজুর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী আলী আকবরসহ সিসিকের অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারী, পুলিশ ও পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা অংশ নেন।

Post A Comment: