পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় দুই স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণের অভিযোগে বুধবার রাতে ও বৃহস্পতিবার সকালে থানায় পৃথক দুটি মামলা করা হয়েছে। ওই দুই স্কুলছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে মামলা করলে পুলিশ বৃহস্পতিবার দুপুরে দক্ষিণ সোনাখালী গ্রাম থেকে ছগির ও তার স্ত্রীকে এবং অপরদিকে তাফালবাড়িয়া স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় রবিউলকে গ্রেপ্তার করে।
 

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় দুই স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণের অভিযোগে বুধবার রাতে ও বৃহস্পতিবার সকালে থানায় পৃথক দুটি মামলা করা হয়েছে। ওই দুই স্কুলছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে মামলা করলে পুলিশ বৃহস্পতিবার দুপুরে দক্ষিণ সোনাখালী গ্রাম থেকে ছগির ও তার স্ত্রীকে এবং অপরদিকে তাফালবাড়িয়া স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় রবিউলকে গ্রেপ্তার করে।


মামলা সুত্রে জানা গেছে, স্থানীয় হাতেম আলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী গত ২৮ অক্টোবর বিকালে পৌর শহরের টিএনটি রোর্ডে প্রাইভেট পড়তে আসে। এ সময় পূর্বে ওৎ পেঁতে থাকা ছগির ও তার দলবল ওই স্কুলছাত্রীকে জোরপূর্বক মোটরসাইকেলে তুলে অপহরণ করে। পরে ছগির ওই ছাত্রীকে বাড়িতে নিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে।

থানা পুলিশ বুধবার রাতে অপহৃতা স্কুলছাত্রীকে ছগিরের বাড়ি থেকে উদ্ধার করে। স্কুল ছাত্রীর বাবা মামলার পর পুলিশ বৃহস্পতিবার সকালে ছগির ও তার মাকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করে।

অপরদিকে উপজেলার নলী তুলাতলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রীকে বাড়ি থেকে মঙ্গলবার গভীর রাতে প্রতিবেশী কালাম শিকদারের ছেলে রবিউল জোরপূর্বক বাড়িতে তুলে    নিয়ে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে পুলিশ বৃহস্পতিবার রবিউলকে গ্রেপ্তার করে।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি কেএম তারিকুল ইসলাম জানান, পৃথক দুটি ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত দুই ধর্ষককেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে।

Post A Comment: