অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি বলেছেন, জনগণের সঙ্গে যেন আমরা অত্যন্ত সম্মানসুলভ ব্যবহার করি। জনগণ যে আমাদের প্রভু। জনগণ যে এদেশের মালিক। তাদের সমর্থনে তাদের অনুমোদনে তাদের দেয়া অর্থে আমরা চলি। সেটা যেন আমারা সার্বিকভাবে মনে রাখি। এতে অপমানের কিছু নেই। এতে আমাদের সম্মান বৃদ্ধি হবে। আমাদের নিজেদের হাত-পা নিজেদের আইন দিয়ে যেন আমরা বন্ধ করে না রাখি।
 

অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি বলেছেন, জনগণের সঙ্গে যেন আমরা অত্যন্ত সম্মানসুলভ ব্যবহার করি। জনগণ যে আমাদের প্রভু। জনগণ যে এদেশের মালিক। তাদের সমর্থনে তাদের অনুমোদনে তাদের দেয়া অর্থে আমরা চলি। সেটা যেন আমারা সার্বিকভাবে মনে রাখি। এতে অপমানের কিছু নেই। এতে আমাদের সম্মান বৃদ্ধি হবে। আমাদের নিজেদের হাত-পা নিজেদের আইন দিয়ে যেন আমরা বন্ধ করে না রাখি।


তিনি বলেন, স্বাধীনতা ও জাতীয় মুক্তির প্রধান লক্ষ্যই ছিল মানুষের জীবনমানের পরিবর্তন। বর্তমান সরকার এ লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছে। আমাদের জাতীয় রাজস্ব আদায়ে বিশ্বের উন্নত দেশগুলো অনেক এগিয়ে থাকলেও আমরা পিছিয়ে রয়েছি। তাই জাতীয় উন্নয়নে রাজস্ব আদায়ে আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি কাজে লাগানো হচ্ছে। এ জন্য ওয়ার্ল্ড কাস্টমস অর্গানাইজেশন, ফিনল্যান্ড ও ভারতের অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয় কাজ করছে।

সোমবার সকাল ৯টায় স্থানীয় গ্রান্ড সুলতান রিসোর্টে ওয়ার্ল্ড কাস্টমস অর্গানাইজেশনের (ডব্লিউসিও) সহযোগিতায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের উদ্যোগে চার দিনব্যাপী এক ওয়ার্কশপে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

উদ্বোধনী সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান, কাস্টমস মোবালাইজেশন এন্ড ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড কর্মকর্তা খন্দকার মোহাম্মদ আমিনুর রহমান, এনবিআর’র কাস্টমস পলিসি সদস্য লুৎফর রহমান, ফিনিক্স অর্থনীতিবিদ নিকা প্রটিহিম, ভারতীয় অর্থ বিশেষজ্ঞ রাজেন্দ্র মিনা।

অর্থ প্রতিমন্ত্রী কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমাদের জাতীয় জীবনে এই মুহূর্তে উন্নয়নের প্রয়োজনে আমাদের প্রচুর রাজস্বের প্রয়োজন আছে এবং রাজস্ব আদায়ে আমাদের প্রধান মূখ্য যে সংস্থা তা হলো জাতীয় রাজস্ব বোর্ড। যাতে আপনারা কাজ করেন। আপনাদের কাজের ফলেই আমাদের রাজস্ব প্রবাহ ইতিবাচক পর্যায়ে এসে পৌঁছেছে। প্রবৃদ্ধি হচ্ছে।

তিনি বলেন, সরকার একটি দল। আমরা একটা খেলোয়াড় দলের মতো। আমাদের দলপতি আছে। তার নেতৃত্বে আমরা বিভিন্ন পজিশনে খেলছি। সুতরাং সেই খেলায় আপনারা যে যেখানে আছেন তাতে আমরা পুরোপুরি অংশ নেবো। এখানে ছোট-বড়র প্রশ্ন নেই। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, সরকারের কোনো মন্ত্রণালয় সুপার মন্ত্রণালয় নয়। সকল মন্ত্রণালয় সমান। সুতরাং সমান শক্তিতে সমান আইনি অধিকারে দায়িত্ব পালন করেন।

Post A Comment: