বগুড়া শাজাহানপুরের বীরগ্রামে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় কৃষি জমিতে পাওয়ার প্লাণ্ট স্থাপন বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।রোববার বেলা ১১টা থেকে পৌনে ১২টা পর্যন্ত বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের বীরগ্রাম ষ্ট্যান্ডে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচিতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিশু শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সহস্রাধিক মানুষ অংশ নেন।
On-the-way-to-stop-the-power-plant-in-the-agricultural-land-the-villagers-of-Namal-Bir-village 

বগুড়া শাজাহানপুরের বীরগ্রামে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় কৃষি জমিতে পাওয়ার প্লাণ্ট স্থাপন বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।রোববার বেলা ১১টা থেকে পৌনে ১২টা পর্যন্ত বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের বীরগ্রাম ষ্ট্যান্ডে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচিতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিশু শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সহস্রাধিক মানুষ অংশ নেন।


মানববন্ধন চলাকালে বক্তারা বলেন, এই এলাকাকে বলা হয়ে থাকে উত্তরবঙ্গের শস্য ভাণ্ডার। এই এলাকায় তেলচালিত বিদ্যুৎ পাওয়ার প্লাণ্ট চালু করা হলে জীব ও পরিবেশের ব্যাপক ক্ষতি হবে।

এছাড়াও শব্দ দূষণ ও বিষাক্ত কার্বণ ও তেজষ্ক্রিয় গ্যাস নির্গমণ হলে এলাকার পরিবেশ ও মানুষ নানা রোগ ব্যধিতে আক্রান্ত হবে। বিশেষ করে গর্ভবতী মা ও শিশুর ক্ষতি হবে। শব্দ দূষণে শিক্ষা ব্যবস্থা নষ্ট হবে। বিষাক্ত ধোঁয়ায় ব্যবসা বানিজ্য ও কৃষি জমির ফসল নষ্ট হবে।

বক্তারা আরো বলেন, পাওয়ার প্লাণ্টটি উর্বর জমির উপর স্থাপন করা হচ্ছে। যে এলাকায় বিএডিসি অনুমোদিত লক্ষ লক্ষ টন আলু বীজসহ প্রচুর পরিমাণে ধান ও অন্যান্য ফসল উৎপাদন হয়ে থাকে। পাওয়ার প্লাণ্টের সাথে হাট-বাজার রয়েছে। আশপাশে ৪-৫ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ দুটি গ্রামে ১০ সহস্রাধিক লোকের ঘনবসতি রয়েছে। এ অবস্থায় ২২৬ মেগাওয়াটের এই পাওয়ার প্লাণ্টটি স্থাপিত হলে একদিকে কৃষি জমি নষ্ট হবে, অপরদিকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য স্থাপিত এই প্লাণ্টের শব্দে পরিবেশ দূষিত হবে।

Post A Comment: