নোয়াখালী আব্দুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ (আমাউমেক) শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মনির হোসেনের ওপর হামলার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে কলেজের ১২ ছাত্রকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার ও অর্থদণ্ড করেছে কলেজ কৃর্তপক্ষ। একইসঙ্গে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বহিষ্কৃতদের হল ত্যাগের নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।
12-students-of-Noakhali-Medical-Expulsion 

নোয়াখালী আব্দুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ (আমাউমেক) শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মনির হোসেনের ওপর হামলার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে কলেজের ১২ ছাত্রকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার ও অর্থদণ্ড করেছে কলেজ কৃর্তপক্ষ। একইসঙ্গে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বহিষ্কৃতদের হল ত্যাগের নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।


বৃহস্পতিবার রাত আটটার দিকে কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মীর হামিদুর রহমান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীরা হলেন- কলেজের ষষ্ঠ ব্যাচের ছাত্র মো. ফরহাদুল ইসলাম, সপ্তম ব্যাচের কৌশিক হোসেন, অষ্টম ব্যাচের হোসাইন মো. আশরাফ এবং অষ্টম ব্যাচের সাইফুল ইসলাম জুয়েল দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

ষষ্ঠ ব্যাচের জাবেদ আহমেদ মুন্না, সাব্বির হোসেন এবং অষ্টম ব্যাচের কাওসারকে ছয় মাসের জন্য বহিষ্কার ও ১০ হাজার অর্থদণ্ড করা হয়েছে।

এছাড়া অষ্টম ব্যাচের শিক্ষার্থী রায়হান, সপ্তম ব্যাচের আসিফ আরাফাত, অষ্টম ব্যাচের আল শাহরিয়ার হৃদয়, ষষ্ঠ ব্যাচের হামিম পাটোয়ারী এবং ষষ্ঠ ব্যাচের সিদ্ধার্থ শংকর দাসকে ছয় মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. গোতম বাপ্পা জানান, রাতে কলেজের একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এ সিন্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

Post A Comment: