বজ্রপাতের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা পেতে গাইবান্ধায় এক লাখ তালগাছের চারা ও বীজ বপন করা হয়েছে। বুধবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত গাইবান্ধার সাত উপজেলায় একযোগে এসব চারা ও বীজ রোপণ করা হয়।
To-prevent-the-thunderstorm-planting-one-lakh-talgachha-in-Gaibandha 

বজ্রপাতের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা পেতে গাইবান্ধায় এক লাখ তালগাছের চারা ও বীজ বপন করা হয়েছে। বুধবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত গাইবান্ধার সাত উপজেলায় একযোগে এসব চারা ও বীজ রোপণ করা হয়।


সকাল ১০টায় জেলা শহরের পৌরসভার পূর্ব কোমরনই কুঠিপাড়া এলাকায় এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন গাইবান্ধার জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র পাল।

গাইবান্ধার তিন পৌরসভার মধ্যে গাইবান্ধা পৌরসভা এলাকায় নয় হাজার, গোবিন্দগঞ্জ পৌরসভায় তিন হাজার ও সুন্দরগঞ্জ পৌরসভায় দুই হাজার এবং প্রতিটি ইউনিয়নে এক হাজার ১০০টি করে তালগাছের চারা বা বীজ রোপণ করা হয়েছে।

কর্মসূচি সম্পর্কে জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র পাল ঢাকাটাইমসকে বলেন, সারা জেলায় এক লাখেরও বেশি তাল গাছের চারা ও বীজ রোপণ করা হয়েছে। পরবর্তীতে এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। তালগাছ বজ্রপাত প্রতিরোধে সহায়তা করে ও সুস্বাদু খাদ্য তৈরি হয়। এছাড়া তালগাছের কাঠ বেশ মূল্যবান ও মাটির ক্ষয়রোধে সহায়তা করে। ঝড় কিংবা অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় তালগাছ আমাদের রক্ষা করে।

কর্মসূচি উদ্বোধনের সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- গাইবান্ধার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এ বি এম সাদিকুর রহমান, গাইবান্ধা পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট শাহ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবীর মিলন, গাইবান্ধা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মাকসুদুল আলম, গাইবান্ধা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. রুহুল আমিন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আলিয়া ফেরদৌস জাহান, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (হেডকোয়ার্টার) মো. আসাদুজ্জামান প্রমুখ।

Post A Comment: