কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ঝাউদিয়া ইউনিয়নের বজরুখ বাখইল গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষে আহত শাহানুর ইসলাম নামে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ নিয়ে সংঘর্ষের ওই ঘটনায় মোট তিনজনের মৃত্যু হলো।
One-killed-in-clashes-between-AL-and-AL-in-Kushtia 


কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ঝাউদিয়া ইউনিয়নের বজরুখ বাখইল গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষে আহত শাহানুর ইসলাম নামে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ নিয়ে সংঘর্ষের ওই ঘটনায় মোট তিনজনের মৃত্যু হলো।


নিহত শাহানুর সদর উপজেলার ঝাউদিয়া ইউনিয়নের বাখইল গ্রামের মারফত মন্ডলের ছেলে। তিনি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের য‌ুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান কেরামত আলীর সমর্থক বলে জানা গেছে।

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রতন শেখ এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৭ সেপ্টেম্বর কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ঝাউদিয়া ইউনিয়নের বাখইল গ্রামে আওয়ামী লীগের দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে বিল্লাল হোসেন ও এনামুল হক নামের দুইজন ওইদিনই নিহত হয়। আহত হয় অন্তত ১০ জন।

পুলিশ ওইদিনই ইউপি চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কেরামত আলীসহ ১৩ জনকে আটক করে। ঘটনার পরদিন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার উপপরিদর্শক কমলেশ বাদী হয়ে ১০০ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরও ৩০০-৪০০ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন।

Post A Comment: