রংপুর ডিসি অফিসের জিএম শাখা থেকে জেলা প্রশাসকের সই জাল করে ও ভুয়া পুলিশ ভেরিফিকেশন দিয়ে কাগজপত্র তৈরি করে চারশ অস্ত্রের লাইসেন্স দেয়া চক্রের অন্যতম হোতা আব্দুল মজিদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ, যিনি এসব অস্ত্রের লাইসেন্স নেয়া চক্রের মূলহোতা সামসুল ইসলামের সহযোগী।
Majeed-arrested-in-possession-of-400-fake-licenses 

রংপুর ডিসি অফিসের জিএম শাখা থেকে জেলা প্রশাসকের সই জাল করে ও ভুয়া পুলিশ ভেরিফিকেশন দিয়ে কাগজপত্র তৈরি করে চারশ অস্ত্রের লাইসেন্স দেয়া চক্রের অন্যতম হোতা আব্দুল মজিদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ, যিনি এসব অস্ত্রের লাইসেন্স নেয়া চক্রের মূলহোতা সামসুল ইসলামের সহযোগী।


সোমবার রংপুর কোতোয়ালি থানায় এক প্রেস ব্রিফিংয়ে ওসি এবিএম জাহিদুল ইসলাম জানান, রবিবার রাতে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার টিনাবাজার থেকে আব্দুল মজিদকে গ্রেপ্তার করে রংপুর কোতোয়ালি থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তার আব্দুল মজিদ টাঙ্গাইলের কালিহাতি উপজেলার চর বানিয়াকৈর এলাকার হায়েত আলীর ছেলে। তিনি সেনাবাহিনীর সাবেক ল্যান্স করপোরাল।

পুলিশ জানায়, সেনাবাহিনীর ল্যান্স করপোরাল হিসেবে চাকরি থেকে অবসর নেয়ার পর এলিট ফোর্স নামের একটি বেসরকারি সিকিউরিটি এজেন্সিতে চাকরি করতেন আব্দুল মজিদ। সেখান থেকেই সামসুলের সঙ্গে এক হয়ে রংপুর ডিসি অফিস থেকে অবৈধভাবে ভুয়া অস্ত্রের লাইসেন্স বাণিজ্য করতেন তিনি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আব্দুল মজিদ লাইসেন্স বাণিজ্য করার বিষয়টি পুলিশের কাছে স্বীকার করেছেন। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে হাজির করে তার ১০ দিনের রিমান্ড চাইবে পুলিশ।

এর আগে গত ৫ জুলাই র‌্যাব ঘটনার মূলহোতা রংপুর ডিসি অফিসের অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর সামসুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছিল র‌্যাব। এ ঘটনায় দুদক ও পুলিশ পৃথকভাবে মামলা করেছে। ডিসি অফিস ৫০টি অস্ত্রের লাইসেন্স বাতিল করেছে। দুদক চার দফায় ৫৫টি অস্ত্র ও ৬১৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে।

Post A Comment: