কুমিল্লার মেঘনার আবদুল মোমেন আখন্দ নামে এক ব্যক্তিকে হত্যার দায়ে চারজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।
 


কুমিল্লার মেঘনার আবদুল মোমেন আখন্দ নামে এক ব্যক্তিকে হত্যার দায়ে চারজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।


মঙ্গলবার সকালে কুমিল্লার অতিরিক্তি জেলা ও দায়রা জজ চতুর্থ আদালতের বিচারক নুর নাহার বেগম শিউলি এই রায় ঘোষণা করেন।

যাবজ্জীবনপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন-মেঘনা উপজেলার চন্দনপুর গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে ইদুল্লাহ মিয়া, একই গ্রামের খলিল মিয়ার ছেলে সাইফুল্লাহ, টুক্কু মিয়ার ছেলে শাহাদাত ও খলিল মিয়ার ছেলে এন্তাজ মিয়া। এদের মধ্যে শাহাদাত ও এন্তাজ পলাতক রয়েছে। আসামিপক্ষের আইনজীবী ছিলেন আলী আশ্রাফ।

মামলার ১৬ আসামির মধ্যে পাঁচজন বিচারকার্য চলাকালে মারা যান। অপরাধ প্রমাণিত না হওয়ায় খালাস পান সাতজন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) রেজ্জাকুল ইসলাম জানান, মেঘনা উপজেলার চন্দনপুর গ্রামের আব্দুল মজিদ আখন্দের ছেলে আবদুল মোমেন খন্দকার সৌদি প্রবাসী ছিলেন। তার বাড়িতে এক নারীর সঙ্গে আসামিদের অনৈতিক সম্পর্ক ছিল। এ বিষয়ে প্রতিবাদ করায় আসামিরা ২০০৫ সালে ১২ জুলাই মোমেনকে শ্বাসরোধে হত্যা করে।

ঘটনার পরদিন মোমেনের ভাই আব্দুল মালেক বাদী হয়ে মেঘনা থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় ১৬ জনকে আসামি করা হয়।

তদন্ত শেষে ওই বছরের ১৫ অক্টোবর মেঘনা থানার উপপরিদর্শক মো. মর্তুজ আলী আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। সাক্ষীদের শুনানি শেষে আদালত আজ এই রায় দেন।

Post A Comment: