সেই যে কবি লিখেছিলেন, ‘আমার সন্তান যেন থাকে দুধে-ভাতে...!’ এ কথা এমন বাবার জন্য মোটেও প্রযোজ্য নয়। হাতে কাঁচা টাকা চাই, তাই নিজের ১১ মাসের শিশুপুত্রকেই বিক্রি করে দিলেন তিনি।
 

সেই যে কবি লিখেছিলেন, ‘আমার সন্তান যেন থাকে দুধে-ভাতে...!’ এ কথা এমন বাবার জন্য মোটেও প্রযোজ্য নয়। হাতে কাঁচা টাকা চাই, তাই নিজের ১১ মাসের শিশুপুত্রকেই বিক্রি করে দিলেন তিনি।


ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের ওডিশা রাজ্যের ভদ্রক জেলায়। সম্প্রতি ২৫ হাজার রুপির বিনিময়ে নিজের ছেলেকে এক দম্পতির কাছে বিক্রি করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে বলরাম মুখিয়া নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে।

পুলিশ জানায়, নিয়মিত কোনও রোজগার নেই বলরামের। তাই একসঙ্গে এত টাকার লোভ সামলাতে পারেননি তিনি। ইতিমধ্যেই পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করেছে। জেরার মুখে সন্তান বিক্রির অভিযোগ স্বীকার করে নিয়েছেন তিনি।

ছেলেকে বিক্রি করে পাওয়া টাকায় কী করেছিলেন তিনি?

পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে বলরাম জানিয়েছেন, ২৩ হাজারের মধ্যে দু’হাজার রুপি দিয়ে তিনি মোবাইল কিনেছিলেন। সাত বছরের মেয়ের জন্য একটি রুপার নূপুর কিনেছেন। আর বাকি টাকা উড়িয়ে দিয়েছেন মদ খেয়ে। বলরামের ১০ বছরের একটি ছেলে রয়েছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

ভদ্রকের পুলিশ সুপার অনুপ সাহু জানান, অবসরপ্রাপ্ত এক সরকারি কর্মী সোমনাথ শেট্টি এবং তার স্ত্রী সম্প্রতি তাদের ২৪ বছরের ছেলেকে হারিয়েছেন। পুত্রশোকে একবারে ভেঙে পড়েছিলেন ওই ষাটোর্ধ্ব দম্পতি। তারাই বলরামের ছেলেকে টাকার বিনিময়ে নিতে আগ্রহী হন। এরপরেই বলরামের এক শ্যালক এবং স্থানীয় এক অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী মিলে ওই দম্পতির কাছে শিশুটিকে বিক্রির ব্যবস্থা পাকা করে।

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনায় বলরামের স্ত্রী সুকুতি মুখিয়া এবং শেট্টি দম্পতিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

Post A Comment: