বরগুনার বামনা উপজেলায় ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি মাকসুদা বেগম ও নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় মাতৃসদন নামের ওই ডায়াগনস্টিকটি সিলগালা করা হয়েছে।
Diagnostic-managers-surgery-involves-the-death-of-a-newborn-baby 

বরগুনার বামনা উপজেলায় ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি মাকসুদা বেগম ও নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় মাতৃসদন নামের ওই ডায়াগনস্টিকটি সিলগালা করা হয়েছে।


মাকসুদা বেগম বামনা উপজেলার আমতলী গ্রামের বাসিন্দা মহারাজের স্ত্রী।

জানা যায়, রোববার রাতে ডাক্তার আসার আগেই ওই প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার মো. আজাদের অস্ত্রোপচার শুরু করেন। এ সময় প্রসূতি ও নবজাতক মারা যায়।

নিহতের স্বামী মহারাজ অভিযোগ করেন, প্রথমে মাতৃসদন নামের ওই ডায়াগনস্টিকে আমার স্ত্রীকে ভর্তি করি। এরপর তাদের কথামতো সব টাকা পরিশোধ করি।

কিন্তু কিছুক্ষণ পর ম্যানেজার আজাদ এসে আমাকে বলেন, আপনার স্ত্রীর অবস্থা আশঙ্কাজনক। উন্নত চিকিৎসার জন্য অন্যত্র নিয়ে যান। সে অনুযায়ী আমরা প্রস্তুতি নেয়ার সময় মাকসুদা মারা যায়।

তিনি বলেন, আমি আমার বাচ্চা ও স্ত্রী হত্যাকারীদের বিচার চাই।

সোমবার সকালে বামনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. জাকির হোসেন বাচ্চুর উপস্থিতিতে ওই ডায়াগনস্টিকটি সিলগালা করে দেওয়া হয়।

বামনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহাবুদ্দিন জানান, বামনা মাতৃসদন ডায়াগনস্টিকে মারা যাওয়া নারীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বরগুনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

Post A Comment: