প্রতিষ্ঠিত সন্তানদের মায়া-মমতা, আদর-যত্ন আর ভালবাসা বঞ্চিত এক সত্তরোর্ধ্ব অসহায়-অসুস্থ ভিক্ষুক মায়ের পাশে দাঁড়ালেন বরিশাল পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম।
Barisal-Superintendent-of-Police-on-the-side-of-the-beggars-mother 

প্রতিষ্ঠিত সন্তানদের মায়া-মমতা, আদর-যত্ন আর ভালবাসা বঞ্চিত এক সত্তরোর্ধ্ব অসহায়-অসুস্থ ভিক্ষুক মায়ের পাশে দাঁড়ালেন বরিশাল পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম।


বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার ক্ষুদ্রকাঠি গ্রামের দরিদ্র কৃষক মৃত আইয়ুব আলীর স্ত্রী মনোয়ারা বেগমের ৬ সন্তানের বিলাসিতার আড়ালে ভিক্ষাবৃত্তি এখন তার শেষ সহায়। তার ৬ সন্তানের মধ্যে ৩ সন্তান পুলিশ বাহিনীর সদস্য। একমাত্র মেয়ে স্কুল শিক্ষিকা। এক ছেলে ব্যবসায়ী এবং আরেক ছেলে নিজের ব্যবহৃত ইজিবাইক ভাড়ায় চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন।

স্বাবলম্বী ছয়জন সন্তান থাকার পরেও অসহায় এই মাকে জীবনের জন্য হাত পাততে হয়েছে মানুষের দ্বারে। কিছুদিন আগে ভিক্ষা করতে গিয়ে পা পিছলে পড়ে গিয়ে কোমরের হাড় ভেঙে যায়। সেই থেকে তিনি বিনা চিকিৎসায় একটি ঝুপড়ি ঘরে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন।

বিষয়টি গণমাধ্যমে আসার পরে বৃদ্ধ মনোয়ারা বেগম এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। বরিশাল জেলার পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম বিষয়টি জানতে পেরে আজ মঙ্গলবার শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উপস্থিত হয়ে অসহায় মায়ের পাশে অবস্থান করে তাঁর খোঁজ-খবর নেন এবং সান্তনা দেন।

পুলিশ সুপার অসুস্থ মনোয়ারা বেগমের হাতে নগদ ১০ হাজার টাকা তুলে দেন। সেই সাথে তাঁর যাবতীয় চিকিৎসার ব্যয়ভারের প্রতিশ্রুতি দেন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বরিশাল জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি ও অপরাধ) মোল্লা আজাদ হোসেনসহ পুলিশের অন্যান্য সদস্যরা।

Post A Comment: