আজ ৬ই আগস্ট। বছর ঘুরে বন্ধু দিবস চলেই এলো। সবারই নিশ্চয়ই দিনটি অনেক ভালো কেটেছে? সব ঠিক আছে কিন্তু ডেজার্ট ছাড়া কী আর কোন পার্টি কিংবা গেট টুগেদার জমে? ডিনারে যদি বন্ধুদের আজ দাওয়াত করে থাকেন, তাহলে ঝটপট তৈরি করে ফেলুন মজাদার 'নো বেক চিজকেক'। রেসিপির নাম শুনেই হয়তো বুঝতে পারছেন এর বিশেষত্ব কী। এই রেসিপির বিশেষত্ব হলো কোন রকম ওভেনের দরকার হবেনা এ কেক বানাতে। চলুন তবে এ মজাদার কেকের রেসিপি জেনে আসা যাক-

আজ ৮ই আগস্ট। বছর ঘুরে বন্ধু দিবস চলেই এলো। সবারই নিশ্চয়ই দিনটি অনেক ভালো কেটেছে? সব ঠিক আছে কিন্তু ডেজার্ট ছাড়া কী আর কোন পার্টি কিংবা গেট টুগেদার জমে? ডিনারে যদি বন্ধুদের আজ দাওয়াত করে থাকেন, তাহলে ঝটপট তৈরি করে ফেলুন মজাদার 'নো বেক চিজকেক'। রেসিপির নাম শুনেই হয়তো বুঝতে পারছেন এর বিশেষত্ব কী। এই রেসিপির বিশেষত্ব হলো কোন রকম ওভেনের দরকার হবেনা এ কেক বানাতে। চলুন তবে এ মজাদার কেকের রেসিপি জেনে আসা যাক-

চিজকেকের উপকরণসমূহঃ
২ প্যাকেট গ্রাহাম ক্র্যাকারস,
১১ টেবিল চামচ মেল্টেড মাখন,
২ টেবিল চামচ চিনি,
২৮ আউন্স ক্রিম চিজ,
১১৪ আউন্স কনডেন্সড মিল্ক,
১\৪ কাপ লেবুর রস,
১ চা চামচ ভ্যানিলা এক্সট্র্যাক্ট।
চিজকেক বানানোর


প্রণালীঃ
 গ্রাহাম ক্র্যাকারস একটি জিপলক ব্যাগে রেখে মিহিভাবে গুঁড়ো করে নিন, এবার একটি মাঝারি আকারের বাটিতে রাখুন। চিনি ও মাখন মিশিয়ে ভালোভাবে নাড়তে থাকুন। একটি প্যানে সুন্দরভাবে বিছিয়ে ফেলুন মিশ্রণটি এবং দশ মিনিট ঠাণ্ডা করার জন্য ফ্রিজে রাখুন। এবার চলুন ফিলিং তৈরি করা যাক। ইলেকট্রিক মিক্সার মাঝারি তাপে দিয়ে বড় একটি বাটিতে ক্রিম চিজ ফেটে নিন। এবার একে একে কনডেন্সড মিল্ক, লেবুর রস ও ভ্যানিলা এক্সট্র্যাক্ট দিয়ে মেশাতে থাকুন। পুরো ফিলিংটি এবার ক্রাস্টের উপর ঢালুন। প্লাস্টিক দিয়ে সুন্দরভাবে মুড়ে দিন এবং আড়াই-তিন ঘণ্টার জন্য ফ্রিজে রেখে দিন। কিছুক্ষণ পর প্যানের ঢাকনা খুলে চিজকেক পরিবেশন করুন।


এবার দেখা যাক ভিন্নতাগুলোঃ
ক্রাস্ট বানানোর দরকার নেই। চিজকেক ফিলিং দিয়েই এবার একটি নতুন ধরনের 'লেয়ার কেক' বানিয়ে ফেলুন। ফিলিং গুলো মিশিয়ে গ্লাসে পুরে দিন। এবার চকোলেট কিংবা ভ্যানিলা ওয়েফার এবং টাটকা ফল দিয়ে সাজিয়ে ফেলুন। ত্রিশ মিনিটের জন্য ফ্রিজে রেখে দিন এবং অতঃপর পরিবেশন করুন।


সবার বন্ধু দিবস কাটুক পরম নির্ভরতার সঙ্গে। শুভেচ্ছা সবাইকে।

Post A Comment: