সাতক্ষীরার শিশু পরিবারে এতিম শিশুদের ওপর দীর্ঘদিন চলা যৌন ও মানসিক নির্যাতনের ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটি জেলা প্রশাসকের কাছে প্রতিবেদন পেশ করেছে। তদন্তে এতিম শিশুদের যৌন নির্যাতনের প্রমাণ মেলায় একজনকে বরখাস্ত ও বিভাগীয় মামলার সুপারিশ, তিনজনকে বদলি এবং শিক্ষক ও বাবুর্চিকে জেলার বাইরে বদলির সুপারিশ করা হয়েছে।
The-investigation-committee-has-found-evidence-of-sexual-abuse-of-orphan-children

    সাতক্ষীরার শিশু পরিবারে এতিম শিশুদের ওপর দীর্ঘদিন চলা যৌন ও মানসিক নির্যাতনের ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটি জেলা প্রশাসকের কাছে প্রতিবেদন পেশ করেছে। তদন্তে এতিম শিশুদের যৌন নির্যাতনের প্রমাণ মেলায় একজনকে বরখাস্ত ও বিভাগীয় মামলার সুপারিশ, তিনজনকে বদলি এবং শিক্ষক ও বাবুর্চিকে জেলার বাইরে বদলির সুপারিশ করা হয়েছে।


জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক (ডিসি) আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন সোমবার  জানান, তদন্ত রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর শিশু পরিবারের কর্মচারী ও যৌন নিপীড়নকারী বিমান বৈরাগীকে বরখাস্ত ও বিভাগীয় মামলার সুপারিশ করা হয়েছে। এ ছাড়া কর্মচারী তানভীর হোসেন, আবদুল্লাহ আল মাহমুদ, কৌশিক ফারহানকে জেলার বাইরে বদলি এবং বাবুর্চি ও শিক্ষক মোস্তফা নুরুজ্জামানকে বদলির সুপারিশ করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক আরো জানান, খাদ্যের যে অনিয়মের কথা বলা হয়েছে সেখানে শিশু পরিবারের যে কমিটি আছে তারা যখন তখন তদন্ত করতে পারবে। এবং জেলা প্রশাসক প্রতি এক মাস অন্তর তদন্ত করবে। জেলা শিক্ষা অফিসারকে বলা হয়েছে একজন ভালো শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার জন্য।

জেলা প্রশাসক জানান, শিশু পরিবারের ভেতরে ১৮ বছরের বেশি বয়সী কিছু ছাত্র আছে তাদের চলে যেতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া কিছু অতি উৎসাহী ছাত্র শিশু পরিবারের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মারধর করেছে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়েছে।

৩০ জুলাই রাতে শিশু পরিবারের শিশুরা একত্রিত হয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মারধর করে। শিশুদের অভিযোগ, শিশু পরিবারে শিক্ষক-কর্মচারীরা তাদের ওপর যৌন নির্যাতন, মানসিক নির্যাতন এবং নিম্নমানের খাবার সরবরাহ করতো। এ ছাড়া অসুস্থ হলেও তাদের ওষুধ দেওয়া হতো না

Post A Comment: