হজ অব্যবস্থাপনার জন্য এককভাবে এজেন্সিগুলোকেই দায়ী করেছেন বেসরকারি বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। বলেছেন, এই এজেন্সিগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দায়িত্ব ধর্ম মন্ত্রণালয়ের। তবে বিমান মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন যেসব ট্রাভেল এজেন্সি হজ্জ কার্যক্রমে এই জটিলতার সঙ্গে জড়িত ছিল তাদের লাইসেন্স বাতিল ও জরিমানা করা হবে।
Hajj-system-against-complexity-agencies 


হজ অব্যবস্থাপনার জন্য এককভাবে এজেন্সিগুলোকেই দায়ী করেছেন বেসরকারি বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। বলেছেন, এই এজেন্সিগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দায়িত্ব ধর্ম মন্ত্রণালয়ের। তবে বিমান মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন যেসব ট্রাভেল এজেন্সি হজ্জ কার্যক্রমে এই জটিলতার সঙ্গে জড়িত ছিল তাদের লাইসেন্স বাতিল ও জরিমানা করা হবে।


সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী জানান, এজেন্সিগুলো সৌদি আরবে নির্ধারিত সময়ে বাড়ি ভাড়া না নেয়ায় এবং টিকেট না করায় এই জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে। সৌদি আরবের বাংলাদেশ মিশন থেকে মোয়াল্লেম ফি বাড়ানোর বিষয়ে এজেন্সিগুলোকে আগেই সতর্ক করা হয়েছিল। কিন্তু তারা এ বিষয়ে কর্ণপাত করেনি। অনেক এজেন্সির কর্মকর্তাদের শেষ মুহূর্তে র‌্যাব ও পুলিশ দিয়ে ডেকে এনে হজযাত্রীদের টিকেট কাটানো হয়।

রাশেদ খান মেনন বলেন, এখন পর্যন্ত নিবন্ধনককৃত ৩৯৭ জনের ভিসা হয়নি। তবে ভিসা পাওয়া ১৮০ জনকে সৌদিয়া এয়ারলাইন্সের সিডিউল স্লটের মাধ্যমে হজে পাঠানো হবে।

Post A Comment: