ঈদুল আজহার দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট ততই ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। গণপরিবহনের পাশাপাশি ঈদের পশুবাহী অনেক ট্রাক মহাসড়কে চলাচল করায় এই যানজট আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। গত দুইদিনের মতো আজও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশে ১০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে মহাসড়কে অবস্থান করা পরিবহনের যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
Dhaka-Chittagong-highway-remained-closed-due-to-traffic-congestion 


ঈদুল আজহার দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট ততই ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। গণপরিবহনের পাশাপাশি ঈদের পশুবাহী অনেক ট্রাক মহাসড়কে চলাচল করায় এই যানজট আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। গত দুইদিনের মতো আজও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশে ১০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে মহাসড়কে অবস্থান করা পরিবহনের যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।


জানা গেছে, গতকাল রাত থেকে মহাসড়কটিতে যানজট যানজট শুরু হয়। আজ ভোরের দিকে যানজট আরও দীর্ঘ হতে থাকে। এতে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে যান চলাচল স্থবির হয়ে পড়ে। মাঝে মাঝে কিছু সময়ের জন্য যান চলাচল শুরু হলেও একটু পরে আবারও বন্ধ হয়ে যায়। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে যানজট কুমিল্লা দাউদকান্দি মেঘনা-গোমতী সেতু থেকে দাউদকান্দির আমিরাবাগ পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে।

কুমিল্লা থেকে ঢাকাগামী বাসযাত্রী আলী আহমেদ জানান, তিনি সকাল সাতটায় কুমিল্লা থেকে যাত্রা শুরু করেছেন। সকাল ১০টায় মেঘনা-গোমতী সেতু পর্যন্ত পৌঁছেছেন।

ঢাকা থেকে কুমিল্লাগামী বাসের যাত্রী তৌহিদ হাসান জানান, প্রায় চার ঘণ্টার মতো মেঘনা সেতুর পশ্চিম পাড়ে আটকা পড়েছেন। তাদের মতো দুর্ভোগে পড়েছেন বিভিন্ন পরিবহনের যাত্রীরা। অপরদিকে মেঘনা সেতুর পূর্বপাড় থেকে গজারিয়ার ভবেরচর বাজার পর্যন্ত প্রায় ছয় কিলোমিটার এলাকায় গাড়ির দীর্ঘ সারি লক্ষ্য করা গেছে। গত চারদিনেও এই মহাসড়কে যানজট ছিল।

দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ জানান, মহাসড়কের চারলেনের

গাড়িগুলো দুই লেনে দুই সেতুতে ধীরগতিতে প্রবেশ করছে। এ কারণে সময় একটু বেশি লাগছে। যানজট নিরসনে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

Post A Comment: