বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন ও কৃষকদের আবার রোপা লাগাতে উদ্বুদ্ধ করতে জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়াল নিজেই গাড়ি থেকে নেমে জমিতে আমনের চারা রোপন করেন।
DC-plantation-plant-to-motivate-flood-affected-farmers 

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন ও কৃষকদের আবার রোপা লাগাতে উদ্বুদ্ধ করতে জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়াল নিজেই গাড়ি থেকে নেমে জমিতে আমনের চারা রোপন করেন।


জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা  পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক আব্দুল আউয়াল।

এ সময় তার সফরসঙ্গী ছিলেন কৃষি বিভাগের উপ-পরিচালক খন্দকার মাওদুদুল ইসলাম, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শাফিয়ার রহমান।

জেলা প্রশাসক এ সময় স্থানীয় কৃষকদের সাথে কথা বলেন এবং বন্যায় ক্ষতির বিষয়টি সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে জানার চেষ্টা করেন।

এলাকা পরিদর্শনকালে তিনি স্থানীয় কৃষকদের বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে তাড়াতাড়ি জমিতে আমন ধানের চারা রোপনের পরামর্শ দেন। এছাড়াও চারার সংকটের ক্ষেত্রে তুলনামূলক উঁচু জমিতে মাসকলাই, ভুট্টা অথবা আগাম জাতের আলু রোপনের পরামর্শ দেন।

তিনি ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সরকারি সহায়তার আওতায় আনার জন্য উপস্থিত কৃষি কর্মকর্তাকে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের  তালিকা প্রণয়ন করে জেলা অফিসে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

এলাকা পরিদর্শনকালে আমজানখোর এলাকায় নিজেই পানিতে নেমে আমন ধানের চারা রোপন করেন তিনি।

এ ব্যপারে জেলা প্রশাসক আবুদল আওয়াল জানান, কৃষকরা ফসল উৎপাদন করে দেশের মানুষের আহার সরবরাহ করে থাকেন। কিন্তু বন্যায় অনেক কৃষকের জমি পানির নিচে তলিয়ে থাকায় সেসব কৃষকেরা ভেঙে পড়েছেন। তাদের উৎসাহ যোগাতে  তিনি নিজে থেকে রোপা রোপন করেন।

প্রসঙ্গত, বন্যায় জেলার  মোট ১ লাখ ৩৪ হাজার ৬০৫ হেক্টর জমির মধ্যে  প্রায় ৫ দশমিক ৭৮ শতাংশ রোপা আমন ক্ষেত নষ্ট হয়ে গেছে।

Post A Comment: