বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় মুদ্রাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে নিরাপদ হিসেবে সুইস ফ্রাঁকে টপকে ইয়েনের নাম উঠে এসেছে। ইয়েনের পরের অবস্থানে অবশ্য সুইস ফ্রাঁ ও মার্কিন ডলার রয়েছে। গোল্ডম্যান স্যাকসের অর্থনীতিবিদদের এক বিশ্লেষণে এ তথ্য উঠে এসেছে।


বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় মুদ্রাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে নিরাপদ হিসেবে সুইস ফ্রাঁকে টপকে ইয়েনের নাম উঠে এসেছে। ইয়েনের পরের অবস্থানে অবশ্য সুইস ফ্রাঁ ও মার্কিন ডলার রয়েছে। গোল্ডম্যান স্যাকসের অর্থনীতিবিদদের এক বিশ্লেষণে এ তথ্য উঠে এসেছে।

জাপানি ইয়েন গত দশকে বৈশ্বিক ঝুঁকিপূর্ণ সম্পদের উত্থান-পতনের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে দারুণভাবে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে সক্ষম হয়েছে। কেভিন ডেলির নেতৃত্বে গোল্ডম্যান স্যাকসের অর্থনীতিবিদদের বিশ্লেষণে দেখা গেছে, অর্থনীতিবিদরা ২০০৭ থেকে ২০১১ এবং ২০১২ থেকে ২০১৬- এই সময়ের মধ্যে বিশ্বের ২৮টি উন্নত ও উন্নয়নশীল দেশের মুদ্রার মানের দৈনিক ও মাসিক ওঠানামা তুলনা করে এ সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন। দেখা গেছে, বৈশ্বিক শেয়ার, যুক্তরাষ্ট্রে তেলের দাম ও ১০ বছর মেয়াদি মার্কিন ট্রেজারি ইল্ডের সঙ্গে ইয়েন সবচেয়ে সামঞ্জস্যপূর্ণভাবে নেগেটিভ কোরিলেশন (নেতিবাচক ওঠানামা) বজায় রেখেছে। 

গোল্ডম্যানের বিশ্লেষণে দেখা গেছে ‘সেফ হ্যাভেন’ নামে পরিচিত মুদ্রাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে নিরাপদ মুদ্রা হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে ইয়েন। অন্যদিকে, কয়েকটি উদীয়মান অর্থনীতির মুদ্রাগুলো সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ (রিস্ক-অন) মুদ্রার ঘরে নাম লিখিয়েছে। এ তালিকায় আছে মেক্সিকোর পেসো, দক্ষিণ আফ্রিকার রান্ড ও অস্ট্রেলীয় ডলার।

Post A Comment: