ক্যামেরা, ব্যাটারি লাইফ, স্ক্রিনসাইজ, র‌্যাম, অপারেটিং সিস্টেম, মেমোরি, প্রসেসর এই ফিচারগুলো ভালো না হলে ফোনের আসল মজাই পাওয়া যায় না। কিন্তু ভালো ক্যামেরা, ব্যাটারি লাইফ, স্ক্রিনসাইজ, র‌্যাম, মেমোরি বা প্রসেসরের ফোন কিনতে খরচটাও পরে একটু বেশি। তবে কম খরচেও উন্নত কনফিগারেশনের কথা বলার ফোন পাওয়া যায়। ওই সব অল্প দামে গল্প করার মতো ৭টি ফোনের খোঁজখবর নিচে দেওয়া হলো।



ক্যামেরা, ব্যাটারি লাইফ, স্ক্রিনসাইজ, র‌্যাম, অপারেটিং সিস্টেম, মেমোরি, প্রসেসর এই ফিচারগুলো ভালো না হলে ফোনের আসল মজাই পাওয়া যায় না। কিন্তু ভালো ক্যামেরা, ব্যাটারি লাইফ, স্ক্রিনসাইজ, র‌্যাম, মেমোরি বা প্রসেসরের ফোন কিনতে খরচটাও পরে একটু বেশি। তবে কম খরচেও উন্নত কনফিগারেশনের কথা বলার ফোন পাওয়া যায়। ওই সব অল্প দামে গল্প করার মতো ৭টি ফোনের খোঁজখবর নিচে দেওয়া হলো।

১. আইটি৫২৩১
আইটি৫২৩১ মডেলের ফিচার ফোন নিয়ে বাজার দাপিয়ে বেড়াচ্ছে আইটেল। ফোনটিতে দীর্ঘ ব্যাটারি ব্যাকআপ সুবিধা দিতে ব্যবহার করা হয়েছে ১৯০০ এমএএইচ লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি। আছে ওয়্যারলেস এফএম, ব্লুটুথ, এমপি থ্রি, এমপি ফোর, ফ্ল্যাশসহ সামনে-পেছনে ভিজিএ ক্যামেরা।
আকর্ষণীয় স্নেক গেইম রয়েছে ফোনটিতে। দুই সিম ব্যবহারের সুবিধাও আছে।
দাম: এক হাজার ২২০ টাকা।

২. ডিগো ডিটেক্টর
ব্যাটারি ব্যাকআপের জন্য প্রত্যন্ত অঞ্চলে জনপ্রিয়তা পেয়েছে ফোনটি। ৩০০০ এমএএইচ লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারির ফোনটি পাওয়ার ব্যাংক হিসেবেও ব্যবহার করা যায়। আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মি ব্যবহার করে জাল টাকা শনাক্ত করার সুবিধা রয়েছে ফোনটিতে।
আছে শক্তিশালী টর্চলাইট, ২ দশমিক ৪ ইঞ্চি পর্দা ও দুই সিম ব্যবহারের সুবিধা। রয়েছে ক্যামেরা, ওয়্যারলেস এফএম, ইন্টারনেট ও ব্লুটুথ। ফোনটিতে সর্বোচ্চ ১৬ জিবি মেমোরি কার্ড ব্যবহার করা যায়।
দাম: এক হাজার ৭৯০ টাকা।

৩. মেট্রো ৩১৩
দুই ইঞ্চি কিউকিউভিজিএ ডিসপ্লের ফোনটির রেজল্যুশন ১২৮ বাই ১৬০ পিক্সেল। রয়েছে সিঙ্গেল কোর ২০৮ মেগাহার্জ প্রসেসর। ১০০০ এমএএইচ লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি দিয়ে ১৩ ঘণ্টা পর্যন্ত কথা বলা যায়। দুটি সিম ব্যবহারের পাশাপাশি রয়েছে ভিজিএ ক্যামেরা, হ্যান্ডি টর্চ, ইন্টারনেট ব্যবহার ও সহজে ফাইল স্থানান্তর সুবিধা।
দাম: দুই হাজার ৩৯০ টাকা।

৪. ওকাপিয়া আশা
ওকাপিয়ার সবচেয়ে কম দামি ফিচার ফোন এই আশা। ফোনটিতে রয়েছে টিএফটি ১ দশমিক ৭৭ ইঞ্চির পর্দা। ডুয়াল সিম ব্যবহার সুবিধার ফোনটিতে আট জিবি পর্যন্ত মেমোরি কার্ড ব্যবহারের সুযোগও আছে। রয়েছে এমপি থ্রি, এমপি ফোর, এফএম রেডিও, কিউভিজিএ ক্যামেরা ও ব্লুটুথ সুবিধা।
আর ১৭০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি দিয়ে দীর্ঘক্ষণ কথা বলা যায়। বাজারে পাওয়া যায় কালো ও কমলা রঙে।
দাম: ৮৮০ টাকা।

৫. গুরু মিউজিক ২
ফোনটিতে রয়েছে সিঙ্গেল কোর ২০৮ মেগাহার্জ প্রসেসর। ডিসপ্লে টিএফটি ১২৮ বাই ১৬০ (কিউকিউভিজিএ) এবং স্ক্রিন ৫ দশমিক শূন্য ৮ সেন্টিমিটারের। রয়েছে ১৬ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়তি মেমোরি কার্ড ব্যবহারের সুবিধা, এমপি থ্রি ও এফএম রেডিও। ডুয়াল সিম ব্যবহার সুবিধার ফোনটির ব্যাটারি ৮০০ এমএএইচের। টানা ১১ ঘণ্টা কথা বলা যায় এ ব্যাটারিতে।
দাম: এক হাজার ৭৯০ টাকায়।

৬. অ্যালকাটেল ১০৫২
৩২ মেগাবাইট র‍্যামের ফোনটিতে রয়েছে কিউকিউভিজিএ ১ দশমিক ৮ ইঞ্চির পর্দা। আর ব্যাটারি ৪০০ মিলি অ্যাম্পিয়ারের। রয়েছে ভিজিএ ক্যামেরাও। একসঙ্গে দুটি সিম ব্যবহারের সুবিধার পাশাপাশি ফোনটিতে রয়েছে অডিও প্লেয়ার ও এফএম রেডিও।
দাম: এক হাজার ৯৯ টাকা।

৭. জেলটাএফএইচ৬০
এই ফোনে রয়েছে ২ দশমিক ৮ ইঞ্চির কিউভিজিএ ডিসপ্লে, ৩২ মেগাবাইট র‍্যাম ও ৩২ মেগাবাইট রম। কার্ড লাগিয়ে মেমোরি বাড়ানো যাবে ১৬ জিবি পর্যন্ত। ডুয়াল সিমের হ্যান্ডসেটটির ব্যাটারি ২৮০০ মিলি অ্যাম্পিয়ারের। কথা বলা যাবে টানা আট ঘণ্টা। স্ট্যান্ডবাই টকটাইম ৩০০ ঘণ্টা।
রয়েছে ওয়্যারলেস এফএম, ভিডিও এবং কল রেকর্ডার, এমিপি থ্রি, এমপি ফোর, ব্লুটুথ, জিপিআরএস, টর্চ সুবিধা। সোনালি, কালো ও লাল রঙে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে।
দাম: দেড় হাজার টাকা।

Post A Comment: