স্বামীকে আটকে রেখে নববধূ ধর্ষণের মামলার আসামি বরিশালের বানারীপাড়ায় উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মো. সুমন হোসেন মোল্লাকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। রবিবার রাত ৯টার দিকে বরিশাল নগরীর কালী বাড়ি রোড থেকে তাকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।
নববধূ ধর্ষণের অভিযোগে উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি গ্রেফতার

    স্বামীকে আটকে রেখে নববধূ ধর্ষণের মামলার আসামি বরিশালের বানারীপাড়ায় উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মো. সুমন হোসেন মোল্লাকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। রবিবার রাত ৯টার দিকে বরিশাল নগরীর কালী বাড়ি রোড থেকে তাকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।




ধর্ষিতার স্বামী জানান, ১৫ দিন আগে চট্টগ্রামে লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলার পূর্ব সরসীতা গ্রামের এক মেয়েকে দ্বিতীয় বিয়ে করে বানারীপাড়ায় নিয়ে আসেন। তার দ্বিতীয় বিবাহ প্রথম স্ত্রী মেনে না নেয়ায় নববধূকে নিয়ে গত শনিবার রাতে উপজেলার বেতাল গ্রামে নানা বাড়ি শামসুল হাওলাদারের বাড়িতে যান। খবর পেয় ছাত্রলীগ সভাপতি সুমন মোল্লা তার সহযোগীদের নিয়ে ওই বাড়িতে যায় এবং নববধূকে সেলিম আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে করেননি বলে অভিযোগ তোলে। একপর্যায়ে সেলিমের কাছে সে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে।

তবে চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে রাতেই জোরপূর্বক সেলিমকে ধরে নিয়ে বেতাল ক্লাবের একটি কক্ষে আটকে রাখে সুমন তার সহযোগীরা। এরপর তারা নববধূ তুলে নিয়ে সেলিমের ফুফু আনোয়ারা বেগমের বাসায় নিয়ে রাতভর ধর্ষণ করে। রবিবার সকালে এলাকাবাসী সেলিমকে ক্লাবের কক্ষ থেকে উদ্ধার করে।

বানারীপাড়ার ওসি সাজ্জাদ হোসেন জানান, বরিশাল নগরীর কালীপাড়ি রোড থেকে ছাত্রলীগ নেতা সুমনকে গ্রেফতার করে বানারীপাড়া থানা ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। আসামিকে সোমবার আদালতে সোপর্দ করা হবে। ধর্ষিতাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বরিশাল শেরে-ই-বাংলা মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে।

Post A Comment: