মেঘনায় ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলারডুবির পর ৫ দিন পেরিয়ে গেলেও সন্ধান মেলেনি ভোলার চরফ্যাশনের ৪ জেলের। সময় বাড়ার সাথে সাথে নিখোঁজদের পরিবারে চরম উৎকণ্ঠা দেখা দিয়েছে। এতে স্বজনরা হতাশ হয়ে পড়েছেন। নদীর তীরে এবং ট্রলার নিয়ে নিখোঁজদের খুঁজে বেড়াচ্ছেন তারা।
ভোলায় ট্রলারডুবি : এখনো সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ৪ জেলের

    মেঘনায় ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলারডুবির পর ৫ দিন পেরিয়ে গেলেও সন্ধান মেলেনি ভোলার চরফ্যাশনের ৪ জেলের। সময় বাড়ার সাথে সাথে নিখোঁজদের পরিবারে চরম উৎকণ্ঠা দেখা দিয়েছে। এতে স্বজনরা হতাশ হয়ে পড়েছেন। নদীর তীরে এবং ট্রলার নিয়ে নিখোঁজদের খুঁজে বেড়াচ্ছেন তারা।


বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত তাদের কোনো সন্ধান মেলেনি। এদিকে নিখোঁজদের দ্রুত উদ্ধারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ দাবি জানিয়েছেন স্বজনরা।

নিখোঁজ জেলেরা হলেন- চরফ্যাসন উপজেলার চরমাদ্রাজ ইউনিয়নের কামাল মাঝি, বাচ্চু, আকাশ ও সাইফুল।

এর আগে রোববার (২৩ জুলাই) রাতে ভোলার মনপুরা উপজেলার চরনিজাম সংলগ্ন সাগর মোহনায় ঝড়ের কবলে পড়ে ১৫ জেলে নিয়ে একটি মাছধরার ট্রলার ডুবে যায়। এ সময় ১১ জনকে উদ্ধার করলেও বাকি ৪ জেলে নিখোঁজ হয়। ডুবে যাওয়া ট্রলারটি চরফ্যাসনের ঢালচর সংলগ্ন সাগর থেকে ২৪ জুলাই সকালে উদ্ধার করা হয়।

চরফ্যাসন সামরাজ এলাকার বাসিন্দা নিখোঁজ জেলে কামাল মাঝির বাবা শাহে আলম জানান, গত ৫ দিন ধরে তারা বিভিন্ন উপায়ে সাগরকুলে ছেলের সন্ধানে হন্নে হয়ে বেড়াচ্ছেন। তার চার সন্তান ও স্ত্রী কান্নায় ভেঙে পড়েছে। একই অবস্থা অন্যান্য জেলের পরিবারেরও। স্বজনরা নিখোঁজদের দ্রুত উদ্ধারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

ভোলা কোস্টগার্ড জোনের অপারেশন অফিসার লে. দেবায়ন চক্রবতি জানান, নিখোঁজদের উদ্ধার তৎপরতার ব্যাপারে স্থানীয় জেলেদের সাথে কোস্টগার্ড সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করে যাচ্ছে।

উদ্ধার কাজে তাদের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহায়তা দেয়ার কথাও জানান তিনি।

Post A Comment: