কাতারের বিরুদ্ধে নতুন করে অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও আইনি পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন চার দেশের জোট। সংকট নিরসনে আল জাজিরা বন্ধ, দোহায় তুরস্কের সেনাঘাঁটি সরানোসহ চারটি দেশের ১৩ শর্ত মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানানোর পরই এ ঘোষণা এলো।
The-Saudi-alliance-announces-new-measures-against-Qatar

    কাতারের বিরুদ্ধে নতুন করে অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও আইনি পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন চার দেশের জোট। সংকট নিরসনে আল জাজিরা বন্ধ, দোহায় তুরস্কের সেনাঘাঁটি সরানোসহ চারটি দেশের ১৩ শর্ত মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানানোর পরই এ ঘোষণা এলো।


বৃহস্পতিবার এক যুক্ত বিবিৃতির মাধ্যমে আবারো কাতারের বিরুদ্ধে গালফ অঞ্চলে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি, নিরাপত্তা বিঘ্নিত ও স্যাবোটাজের অভিযোগ করে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও মিশর। খবর আল জাজিরা, বিবিসি ও আল আরাবিয়্যার।

গত ৫ জুন এই চারটি দেশ সন্ত্রাসবাদে মদদ, মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি ও অভ্যন্তরণীণ হস্তক্ষেপের অভিযোগ এনে কাতারের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করে।

এরপর থেকেই কুয়েতের নেতৃত্বে বিশ্ব নেতৃবৃন্দ কাতার সংকট নিরসনে কাজ করে যাচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে কুয়েতের মাধ্যমে চারটি দেশ কাতারকে ১৩টি শর্ত দেয়।

একই সঙ্গে তারা এসব শর্ত পূরণে ১০ দিন সময় বেঁধে দেয়। কিন্তু আল্টিমেটামের সময় শেষ হওয়ার ২৪ ঘণ্টা আগে কাতারের পক্ষ থেকে এসব শর্ত প্রত্যাখ্যান করা হয়।

কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আবদুল রহমান আল-থানি সাফ জানিয়ে দেন, কাতার কোনো শর্তে আলোচনায় যাবে না।

তিনি বলেন, ‘প্রত্যেকে এ বিষয়ে সতর্ক যে, তাদের শর্তসমূহ কাতারের সার্বভৌমত্বের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। এটা কতারের বাকস্বাধীনতার পথ রুদ্ধ করবে। ব্যাহত করবে কাতারের স্বাভাবিক কার্যক্রম।’

এরপর কুয়েতের অনুরোধে সৌদি জোট এই সময় সীমা আরো ৪৮ ঘণ্টা বৃদ্ধি করে। কিন্তু কাতারের পক্ষ থেকে এবারো সাড়া না মেলায় এই চার দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা গত বুধবার মিশরের রাজধানী কায়রোয় আলোচনায় বসে।

ওই বৈঠকেই কাতারবিরোধী অবরোধ অব্যাহত রাখা এবং পরবর্তীতে আরো কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত আসে।

বৈঠক শেষে বৃহস্পতিবার যুক্ত বিবৃতিতে সৌদি জোট জানিয়েছে, ১৩টি শর্ত পূরণে কাতারকে বাধ্য করতে নতুন করে অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক এবং আইনি পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে তারা।

ধারণা করা হচ্ছে, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসেন আগামী সোমবার কুয়েত সফরে আসছেন। তার এই সফরের পরেই হয়তো কাতারের ওপর নতুন পদক্ষেপের ঘোষণা দেবে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন জোটের দেশগুলো।

Post A Comment: