মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার চাতলাপুর চা বাগানে চিকিৎসার নামে ফাঁদে ফেলে চা শ্রমিকের কিশোরী কন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় ওই কিশোরীর মামাসহ অজ্ঞাত কবিরাজকে আসামি করে কুলাউড়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলায় কিশোরীর মামা পঞ্চম বাউরীকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
চিকিৎসার ফাঁদে ফেলে কিশোরীকে ধর্ষণ

    মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার চাতলাপুর চা বাগানে চিকিৎসার নামে ফাঁদে ফেলে চা শ্রমিকের কিশোরী কন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় ওই কিশোরীর মামাসহ অজ্ঞাত কবিরাজকে আসামি করে কুলাউড়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলায় কিশোরীর মামা পঞ্চম বাউরীকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।




গত ৫ জুলাই বুধবার সন্ধ্যায় চাতলাপুর চা বাগানের প্লান্টেশন এলাকায় ঘটনাটি ঘটলে পরদিন ভোরে কিশোরীকে উদ্ধারের পর মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দিয়ে ১১ জুলাই মঙ্গলবার রাতে কুলাউড়া থানায় দু’জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন ধর্ষণের শিকার কিশোরীর বাবা।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কুলাউড়া থানার এসআই মো. জহিরুল ইসলাম বৃহস্পতিবার এ প্রতিনিধিকে বলেন, কিশোরীর মামা পঞ্চম বাউরীর সাথে কবিরাজবেশী প্রতারকের সম্পর্ক ছিল। কুলাউড়া থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। তাকে বুধবার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষণ কবিরাজকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, চাতলাপুর চা বাগানের ওই কিশোরী দীর্ঘদিন ধরে নানান রোগে ভুগছিল। দরিদ্র পরিবার তার চিকিৎসায় তেমন কোন ব্যবস্থা নিতে পারেনি।

Post A Comment: