সিলেটে হিন্দু সম্প্রদায়ের এক কিশোরীকে হাসপাতালের সামনে থেকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের ঘটনায় হাসানুজ্জামান ইস্পাহানি নামে পৌর যুবলীগের এক নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার রাত ১১টার দিকে সুনামগঞ্জের আরফিন নগর গ্রামের নিজ বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
তুলে নিয়ে কিশোরীকে গণধর্ষণ, যুবলীগ নেতা গ্রেফতার

    সিলেটে হিন্দু সম্প্রদায়ের এক কিশোরীকে হাসপাতালের সামনে থেকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের ঘটনায় হাসানুজ্জামান ইস্পাহানি নামে পৌর যুবলীগের এক নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার রাত ১১টার দিকে সুনামগঞ্জের আরফিন নগর গ্রামের নিজ বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।


হাসানুজ্জামান ইস্পাহানি ওই গ্রামের চা বিক্রেতা আবদুল আলীর ছেলে এবং পৌর যুবলীগের সদস্য বলে জানা গেছে।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি থানার ওসি গৌছুল হোসেন জানান, গত ২২ জুলাই সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে থেকে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওই কিশোরীকে ইস্পাহানি ও তার চার সহযোগী তুলে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় পরদিন কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা করেন কিশোরীর পরিবার। পরে মঙ্গলবার সুনামগঞ্জ থেকে ওই কিশোরীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। পরে সিলেট পিডিবি স্কুল থেকে এবার এসএসসি পাস করা কিশোরীকে এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বুধবার ওই কিশোরীকে আদালতে হাজির করে ২২ ধারায় জবানবন্দি নেওয়া হয়। জবানবন্দিতে তিনি জানান, ইস্পাহানি ও তার সহযোগীরা অপহরণের পর সুনামগঞ্জের একটি নির্জন বাড়িতে আটকে রেখে তাকে গণধর্ষণ করে।

ওসি আরো জানান, ইস্পাহানি সুনামগঞ্জে যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত বলে জানতে পেরেছি। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগে ২২টি মামলা রয়েছে।

Post A Comment: