সৌদি আরবের নারীদের সূচিকর্ম করা আবায়া বা বোরখা পরতে এবং মেকআপ না করতে আহ্বান করেছিলেন সেখানকার এক নামকরা ধর্মীয় নেতা। কিন্তু তার এই আহ্বানে সাড়া না দিয়ে উল্টো অনেক নারী তাদের আবায়া পরা ছবি টুইটারে পোস্ট করে জানতে চান- তাদের কেমন লাগছে। খবর বিবিসি বাংলার।
আমার বোরকা দেখতে কেমন:  টুইটারে ইমামকে সৌদি মেয়েরা

    সৌদি আরবের নারীদের সূচিকর্ম করা আবায়া বা বোরখা পরতে এবং মেকআপ না করতে আহ্বান করেছিলেন সেখানকার এক নামকরা ধর্মীয় নেতা। কিন্তু তার এই আহ্বানে সাড়া না দিয়ে উল্টো অনেক নারী তাদের আবায়া পরা ছবি টুইটারে পোস্ট করে জানতে চান- তাদের কেমন লাগছে। খবর বিবিসি বাংলার।


ধর্মীয় নেতা মোহাম্মদ আলারাফে গত রোববার টুইটারে এক পোস্টে বলেন, ‘হে কন্যারা, এমন আবায়া(বোরখা) তোমরা কিনবে না, যেটাতে অনেক সাজ-সজ্জা আছে। এবং তোমাদের প্রতি অনুরোধ, কোনো মেক-আপ ব্যবহার করো না।’

এরপরই দেশটির নারীদের টুইটারে ছবি পোস্ট করা শুরু হয়।

নারীরা তাদের আবায়া পরা ছবি টুইটারে পোস্ট করে জানতে চান, তাদের কেমন লাগছে।
 


একজন নারী টুইটারে তার আবায়া পরা ছবি পোস্ট করে জানতে চান, ‘শেখ, আমার আবায়া তোমার কেমন লাগছে? পরেরবার আমি আরও রং ঝলমলে কারুকাজ করা আবায়া কিনবো।’

আরেকজন টুইট করেন, ‘আমি আমার চমৎকার খোলামেলা আবায়ার ছবি শেয়ার করতে চাই।’

তবে মোহাম্মদ আলারাফে সৌদি আরবে বেশ জনপ্রিয়। তার পোস্টটি রি-টুইট করা হয় ৩১ হাজার বার।

সৌদি নারীরা যে আবায়া পরেন তাতে মুখ, হাত এবং পা ছাড়া পুরো শরীর ঢাকা থাকে। বর্তমানে বিভিন্ন রঙের এবং হাল ফ্যাশনের অনেক আবায়া সৌদি আরবের নারীদের পরতে দেখা যায়।

মুসলিম ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিতে আবায়ার গুরুত্ব বাড়ছে। হ্যারডসের মতো নামকরা দোকানেও এখন আবায়া বিক্রি হয়। কিন্তু সৌদি আরবে ধর্মীয় রক্ষণশীলরা একে ফ্যাশন হিসেবে দেখতে মোটেও রাজি নন।

Post A Comment: