এবার আরেকটি ট্রাজিক রোমিও-জুলিয়েট মঞ্চস্থ হয়েছে ইসরাইলে। একজন মুসলিম যুবকের সঙ্গে প্রেম করায় নিজের কিশোরী কন্যাকে ছুরিকাঘাতে খুন করল এক ইসরাইলি খ্রিস্টান বাবা।
মুসলিম যুবকের সঙ্গে প্রেম, মেয়েকে খুন ইসরাইলি বাবার

    এবার আরেকটি ট্রাজিক রোমিও-জুলিয়েট মঞ্চস্থ হয়েছে ইসরাইলে। একজন মুসলিম যুবকের সঙ্গে প্রেম করায় নিজের কিশোরী কন্যাকে ছুরিকাঘাতে খুন করল এক ইসরাইলি খ্রিস্টান বাবা।


মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন এর খবরে বলা হয়, সামি কারা নামে ৫৮ বছর বয়সী সেই বাবা ইসরাইলি শহর রামলেতে নিজ বাসায় খুনের ঘটনাটি ঘটান।

১৭ বছর বয়সী হেনরিয়েট কারা এক মুসলিম যুবকের সঙ্গে প্রেম করছিলেন। মুসলিম যুবকের সঙ্গে সম্পর্কের ব্যাপারে পরিবার তার উপর ক্ষুব্ধ ছিল।

যেদিন হেনরিয়েটকে মারা হয় তার একদিন আগে স্কুল থেকে গ্রাজুয়েশন শেষ করেছিল সে।

ইসরায়েলের একটি ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে হত্যাকাণ্ডটি নিয়ে একটি মামলা হয়েছে।


মামলার সূত্রে জানা যায়, গত মে মাসে নিজের বাসা ছেড়ে প্রেমিকের বাসায় উঠেছিল মেয়েটি। নিজ বাসায় তাকে হুমকি-ধামকি ও গালাগালি করা হতো বলে জানা যায়। প্রেমিকের মায়ের আশ্রয়ে কিছুদিন ছিলেন হিনরিয়েট।

প্রেমিককে ও তার মাকে বিভিন্ন হুমকি-ধামকি দিয়ে মেয়েকে ফেরত পাঠাতে বলছিলেন সেই ইসরায়েলি তরুণীর পরিবার।

এ অবস্থায় একজন সমাজকর্মীর মধ্যস্থতায় মেয়েটি বাসায় ফিরতে রাজি হয়। ১২ জুন তাদের স্কুল গ্রাজুয়েশন পার্টি উদযাপন শেষে বাসায় ফিরেছিল হেনরিয়েট। পরদিন সকালে পোস্ট অফিসে গিয়ে প্রেমিককে ১০০ ডলার পাঠান। একটি দুর্বল অভিযোগে প্রেমিককে জেলে পুরা হয়েছিল। সপ্তাহ শেষে জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার কথা ছিল তার।

প্রেমিককে অর্থ পাঠিয়ে বাসায় ফিরেন হেনরিয়েট। পরিবারকে জানান তিনি ইসলামে ধর্মান্তরিত হতে চান। পরিবারের সদস্যরা তার বাবাকে জানান।

মেয়ের এ পরিকল্পনার কথা শুনে মারাত্মক রেগে যান বাবা সামি কারা। মেয়েকে তিনবার উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করেন। এতে সে মারা যায়।

মেয়েকে হত্যার দায়ে বাবা সামি কারাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

Post A Comment: