গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় হামলার ‘অন্যতম পরিকল্পনাকারী’ আসলাম হোসাইন রাশেদ ওরফে রাশেদুল ইসলাম র‍্যাশকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে নাটোরের সিংড়া বাজার বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তাকে গ্রেফতার করে। পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এসএমএসে এ তথ্য জানানো হয়।
নীলফামারীতে ঈদ উপলক্ষে হৃষ্টপুষ্ট হচ্ছে ৬২ হাজার পশু

    গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় হামলার ‘অন্যতম পরিকল্পনাকারী’ আসলাম হোসাইন রাশেদ ওরফে রাশেদুল ইসলাম র‍্যাশকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে নাটোরের সিংড়া বাজার বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তাকে গ্রেফতার করে। পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এসএমএসে এ তথ্য জানানো হয়।



এতে আরো বলা হয়, ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট, বগুড়া জেলা পুলিশ, নাটোর জেলা পুলিশ এই অভিযানে অংশ নেয়। রাশেদকে ঢাকায় আনা হচ্ছে।

বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী  জানান, ঢাকা থেকে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের একটি দল নাটোরে এসে রাশেদকে গ্রেফতার করেছে।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১ জুলাই রাতে হলি আর্টিজান রেস্তারাঁয় সশস্ত্র হামলা চালায় পাঁচ জঙ্গি। জঙ্গিরা ১৭ বিদেশি, দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ ২২ জনকে হত্যা করে। পরদিন সকালে সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে সেখানে যৌথ বাহিনী অভিযান চালায়। অভিযানে নিহত হয় পাঁচ জঙ্গি।

হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় হামলার মূল পরিকল্পনাকারীসহ বিভিন্ন পর্যায়ে নব্য জেএমবির ২১ জন জড়িত থাকার তথ্য-উপাত্ত পেয়েছেন তদন্তকারীরা।

তাদের মধ্যে অন্তত ১৫ জন গত এক বছরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিভিন্ন অভিযানে নিহত হন। গ্রেফতারের পর তিনজন কারাগারে রয়েছেন।

নব্য জেএমবির নেতা রাশেদসহ এ হামলার ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে পুলিশ খুঁজছিল। পুলিশের দাবি, এদের ধরা সম্ভব হলে ওই ঘটনায় দায়ের মামলার অভিযোগপত্র দ্রুত দেওয়া সম্ভব হবে।

Post A Comment: