আলোচিত অপহরণ ঘটনার শিকার কবি, কলামিস্ট ও রাজনৈতিক ভাষ্যকার ফরহাদ মজহার বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ‘চিকিৎসকের পরামর্শে’ গণমাধ্যম এড়িয়ে চলছেন তিনি। তবে মজহার এখনো ট্রমায় ভুগছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

    আলোচিত অপহরণ ঘটনার শিকার কবি, কলামিস্ট ও রাজনৈতিক ভাষ্যকার ফরহাদ মজহার বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ‘চিকিৎসকের পরামর্শে’ গণমাধ্যম এড়িয়ে চলছেন তিনি। তবে মজহার এখনো ট্রমায় ভুগছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।


গত ৩ জুলাই ভোরে ঢাকা থেকে অপহরণের পর নাটকীয়ভাবে রাত সাড়ে ১১টার দিকে যশোরের নওয়াপাড়ায় খুলনা থেকে ঢাকাগামী একটি বাস থেকে ফরহাদ মজহারকে উদ্ধার করার দাবি করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

পরদিন ঢাকায় আনা হলে বিকালে আদালত তাকে ‘নিজ জিম্মায়’ মুক্তি দেন। মুক্তির পর থেকে তিনি রাজধানীর বারডেম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

সোমবার দুপুরে হাসপাতাল ও ফরহাদ মজহারের একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র  জানায়, বর্তমানে তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত আছেন। ঘটনার পর থেকেই তিনি ট্রমায় ভুগছেন।

যোগাযোগ করা হলে ফরহাদ মজহারের স্ত্রী ফরিদা আখতার এ বিষয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি।

দৃশ্যতঃ ফরহাদ মজহার ও তার পরিবার এ বিষয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে চান না। আর ‘চিকিৎসকরা’ ফরহাদ মজহারকে পরিবারের বাইরের কারো সঙ্গে তেমন দেখা-সাক্ষাৎ ও কথা বলতে নিষেধ করেছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বারডেম হাসপাতালের একটি সূত্র জানায়, ফরহাদ মজহার এখন মোটামুটি ভালো। তবে তিনি মানসিকভাবে বেশ বিপর্যস্ত হয়েছেন। এখনো সেই ট্রমা থেকে বের হতে পারেননি। কিছু শারিরীক পরীক্ষা-নিরীক্ষা হয়েছে। সবগুলোর রিপোর্ট এখনো পাওয়া যায়নি। রিপোর্ট পেলে জ্যেষ্ঠ চিকিৎসক মতামত দিবেন।

ফরহাদ মজহার তাকে অপহরণ করা হয়েছে বলে আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন। বর্তমানে তার অপহরণ মামলার তদন্ত করছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা ও অপরাধ তথ্য বিভাগ (ডিবি-ডিএমপি)।

Post A Comment: