স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, ফরহাদ মজহার নিখোঁজের পর বাস থেকে উদ্ধারের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তিনি কীভাবে গেলেন, কী নিয়ে বের হয়েছেন তার সবই আমরা খতিয়ে দেখছি। পুলিশ বাহিনী তার মোবাইল ফোন ট্রেস করার মাধ্যমে তাকে সনাক্ত করে উদ্ধার করে। পরে তাকে আদালতে নেয়া হয়, তার জবানবন্দি নেয়ার জন্য। এবিষয়ে একটি মামলা হয়েছে, মামলার তদন্ত রিপোর্ট দ্রুতই প্রকাশ করা হবে।
‘ফরহাদ মজহার নিখোঁজের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে’

    স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, ফরহাদ মজহার নিখোঁজের পর বাস থেকে উদ্ধারের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তিনি কীভাবে গেলেন, কী নিয়ে বের হয়েছেন তার সবই আমরা খতিয়ে দেখছি। পুলিশ বাহিনী তার মোবাইল ফোন ট্রেস করার মাধ্যমে তাকে সনাক্ত করে উদ্ধার করে। পরে তাকে আদালতে নেয়া হয়, তার জবানবন্দি নেয়ার জন্য। এবিষয়ে একটি মামলা হয়েছে, মামলার তদন্ত রিপোর্ট দ্রুতই প্রকাশ করা হবে।


বুধবার দুপুরে গাজীপুরের টঙ্গী মডেল থানার নতুন ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খান, জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ুন কবীর, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদসহ পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

অপর একপ্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, মাল্টিফ্যাবস লিমিটেড কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে কারা দায়ী সেটি তদন্ত করা দেখা হচ্ছে। মালিকসহ যাদের দোষ প্রমাণিত হবে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমরা জানতে চাইব, যাদের ওপর বয়লারের দায়িত্ব ছিল তা চেক করার তা তারা ঠিকমত করেছে কী না। যথাযথ রক্ষণাবেক্ষন না হলে এধরনের বয়লার বিস্ফোরণ ঘটতে পারে।

Post A Comment: