বরিশালে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজের ৬দিন পর এইচএম আব্দুল আলীম জুয়েল নামে একজন প্রকৌশলী বাসায় ফিরে এসেছেন। বুধবার রাতে নগরীর কালুশাহ সড়কের তার মামা মো. ইব্রাহীমের বাসায় তিনি হঠাৎ এসে উপস্থিত হন। তার ফিরে আসার খবরে নগরীর কোতায়ালী থানা পুলিশ তার বাসায় যায়। তবে সুস্থ্য থাকায় তিনি কীভাবে নিখোঁজ হয়েছিলেন, এতদিন কোথায় ছিলেন এসব উত্তর এখনো জানা যায়নি। জুয়েল কারো সাথে কোনো কথাও বলছেন না।
  Engineer-returned-to-the-mysterious-disappearance-6-days 


বরিশালে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজের ৬দিন পর এইচএম আব্দুল আলীম জুয়েল নামে একজন প্রকৌশলী বাসায় ফিরে এসেছেন। বুধবার রাতে নগরীর কালুশাহ সড়কের তার মামা মো. ইব্রাহীমের বাসায় তিনি হঠাৎ এসে উপস্থিত হন। তার ফিরে আসার খবরে নগরীর কোতায়ালী থানা পুলিশ তার বাসায় যায়। তবে সুস্থ্য থাকায় তিনি কীভাবে নিখোঁজ হয়েছিলেন, এতদিন কোথায় ছিলেন এসব উত্তর এখনো জানা যায়নি। জুয়েল কারো সাথে কোনো কথাও বলছেন না।


গত ৩০ জুন নগরীর হাতেম আলী কলেজ চৌমাথা বাজার থেকে নিখোঁজ হন বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ওই প্রকৌশলী। তিনি নগরীর দক্ষিষ আলেকান্দা মীরাবাড়ির পোল এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে। গত ১ জুলাই নিখোঁজের পর জুয়েলের বড় ভাই এইচএম আবদুল্লাহ হিমেল কোতোয়ালী মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।

কোতয়ালী মডেল থানায় দায়ের করা সাধারণ ডায়েরির তদন্ত কর্মকর্তা এসআই রেজাউল ইসলাম জানান, জুয়েল ফিরে আসলেও সে খুব অসুস্থ্য। তাকে শেরে-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর তারা জানিয়েছেন জুয়েল সুস্থ্য আছেন। এরপর জুয়েলকে তার পরিবারের জিম্মায় দেওয়া হয়। তবে পরিবারের সদস্যরা তার নিখোঁজের ব্যাপারে জানতে চাইলে জুয়েল নিশ্চুপ থাকছেন। পুলিশও জুয়েলের কাছ থেকে নিখোঁজ হওয়ার রহস্য জানার চেষ্টা করছে।

Post A Comment: