মাগুরার মঘির ঢালে পেট্রোলবোমা হামলায় ৫ বালু শ্রমিক নিহতের ঘটনায় দায়ের করা মামলার চার্জ গঠন করা হয়েছে। চাঞ্চল্যকর এ মামলার চার্জশিটভুক্ত ২২ আসামির সবাই জেলা বিএনপি ও জামায়াতের নেতাকর্মী।
পাঁচ শ্রমিক নিহতের ঘটনায় বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন

    মাগুরার মঘির ঢালে পেট্রোলবোমা হামলায় ৫ বালু শ্রমিক নিহতের ঘটনায় দায়ের করা মামলার চার্জ গঠন করা হয়েছে। চাঞ্চল্যকর এ মামলার চার্জশিটভুক্ত ২২ আসামির সবাই জেলা বিএনপি ও জামায়াতের নেতাকর্মী।


বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আহ্বান করা দেশব্যাপী অবরোধ চলাকালে ২০১৫ সালের ২১ মার্চ সন্ধ্যায় মাগুরা-যশোর সড়কের মঘির ঢাল এলাকায় একটি বালুর ট্রাকে পেট্রোলবোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এতে রওশন আলি, শাকিল আহমেদ, মতিন বিশ্বাস, ইমরান হোসেন, ইয়াদুল শেখ, ফারুক হোসেন, নাজমুল হোসেন, ইলিয়াস আলি এবং আরব আলী নামে ৯ শ্রমিক দগ্ধ হন। এদের মধ্যে আরব আলির বাড়ি ফরিদপুরের মধুখালী এবং বাকি ৮ জন মাগুরার সদর উপজেলার মালিক গ্রামের সাধারণ খেটে খাওয়া দিনমজুর।

লোমহর্ষক ওই ঘটনার পরপর দগ্ধ ৯ শ্রমিককে প্রথমে মাগুরা সদর হাসপাতালে এবং পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রওশন আলি, শাকিল আহমেদ, মতিন বিশ্বাস, ইমরান হোসেন ও ইয়াদুল শেখ নামে ৫ শ্রমিক মারা যান।

এ ঘটনার পর পেট্রোলবোমা হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে জেলা বিএনপির তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক আলি আহমেদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি মনোয়ার হোসেন খান, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ হোসেন, জেলা জামায়াতের আমির আলমগীর হোসেন, রাজনৈতিক সেক্রেটারি এমবি বাকের, শিবির সেক্রেটারি এরশাদ হোসেন, পৌর কাউন্সিলর বিএনপি নেতা খিজিল খানসহ স্থানীয় বিএনপি-জামাতের ২৬ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মাগুরা থানায় একটি মামলা করা হয়।

মাগুরা সদর থানার এসআই সালাম বাদী হয়ে ওই মামলাটি করেন। পরবর্তীতে মামলাটি ডিবিতে স্থানান্তরিত হলে ওই বছরের ১৬ আগস্ট তৎকালীন ডিবি ইন্সপেক্টর ইমাউল হক মামলা থেকে ৭ জনকে অব্যাহতি এবং নতুন করে ৩ জনকে অন্তর্ভুক্ত করে মোট ২২ জনের নামে চার্জশিট প্রদান করেন।

আলোচিত এ মামলায় চার্জ শুনানির জন্য আদালতে উপস্থাপন করা হলেও সব আসামি গ্রেফতার না হওয়াসহ নানা কারণে গত ২ বছরে মোট ৫ বার দিন ধার্য করার পরও শুনানি সম্পন্ন হয়নি। অবশেষে সোমবার মাগুরার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ আরাফাত হোসেন আলোচিত এ মামলার চার্জগঠন করেন।

চার্জভুক্ত ২২ আসামির অন্যরা হলেন—রাজিব আহমেদ, আকরাম হোসেন, আবদুর রহিম, রবিউল ইসলাম, আবু তাহের সবুজ, জালাল মোল্যা, মাহবুব হোসেন, আলামিন, জাকারিয়া, বাদশা মিয়া, অ্যাডভোকেট সজল, ফারুক হোসেন, বাশি মিয়া, অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান ও হিট্টু।

মামলার সরকার পক্ষের কৌঁসুলি কামাল হোসেন জানান, এতদিন সব আসামি আদালতে হাজির না হওয়ায় মামলার চার্জ শুনানি সম্ভব হয়নি। সোমবার আসামিরা আদালতে হাজির হলে বিচারক দীর্ঘদিন ঝুলে থাকা মামলাটির চার্জ শুনানি সম্পন্ন করে চার্জগঠন করেন। তারপরও পুলিশের চার্জশিটভুক্ত ২ নম্বর আসামি মনোয়ার হোসেন খান ফেরারি আছেন।

Post A Comment: