বরিশালের দ্বীপ উপজেলা মেহেন্দিগঞ্জের ৭টি ইউনিয়নে নির্বাচনী আমেজ তুঙ্গে রয়েছে। আগামী ১৩ জুলাই এই ইউনিয়নগুলোতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে বিএনপি, আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী এবং ইসলামী আন্দোলনের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
বরিশালের ৭ ইউনিয়নে নির্বাচনী আমেজ

    বরিশালের দ্বীপ উপজেলা মেহেন্দিগঞ্জের ৭টি ইউনিয়নে নির্বাচনী আমেজ তুঙ্গে রয়েছে। আগামী ১৩ জুলাই এই ইউনিয়নগুলোতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে বিএনপি, আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী এবং ইসলামী আন্দোলনের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।


এছাড়াও সাধারণ ও সংরক্ষিত সদস্য প্রার্থীরা ভোট যুদ্ধে লড়ছেন। এরইমধ্যে নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে সকল ধরনের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা বন্ধ রয়েছে। 

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের মধ্যে ৮টি ইউনিয়নে নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ১৩ জুলাই বাকি ৭ ইউনিয়নে ১৮ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এগুলোর মধ্যে- গোবিন্দপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের টিকিটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মহিউদ্দিন তালুকদার (নৌকা মার্কা) এবং বিএনপি’র আব্দুল মোতালেব দেওয়ান (ধানের শীষ)।

আন্ধারমানিক ইউনিয়নে বিএনপি মনোনীত আব্দুর রহমান এবং আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. নাসির উদ্দিন খোকন ও আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী কাজী শহীদুল ইসলাম (আনারস)।

জয়নগর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সেকান্দার আবু জাফর (নৌকা), আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী মনির হাওলাদার (আনারস) এবং বিএনপির দুলাল বেপারী (ধানের শীষ)।

লতা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মিজানুর রহমান নেহাল (নৌকা), বিএনপির নাজমুল হক তিনু (ধানের শীষ) এবং স্বতন্ত্র মাওলানা আবুল হোসেন (আনারস)।

চরএককরিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের আব্দুল মকিম তালুকদার (নৌকা), বিএনপির কামাল উদ্দিন আহম্মেদ (ধানের শীষ) এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মাওলানা হাবিবুর রহমান (হাতপাখা)।

শ্রীপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের হারুন অর-রশিদ (নৌকা) ও বিএনপির কাজী শাখাওয়াত হোসেন রুবেল (ধানের শীষ) প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

আলিমাবাদ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের শেখ শহিদুল ইসলাম (নৌকা) এবং বিএনপির মাইনুদ্দিন মৃধা (ধানের শীষ)।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল হালিম খান জানান, আগামী ১৩ জুলাই  মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ওইদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভাট গ্রহণ করা হবে। নির্বাচন সুষ্ঠু করতে যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

Post A Comment: