আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সিলেট এমসি কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষের জের ধরে হোস্টেল ভাঙচুর করা হয়েছে। এ সময় ছাত্রলীগ কর্মীরা হোস্টেলের ৮/১০টি কক্ষ ভাঙচুর করে। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় এ ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এমসি কলেজ ও হোস্টেল এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

    আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সিলেট এমসি কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষের জের ধরে হোস্টেল ভাঙচুর করা হয়েছে। এ সময় ছাত্রলীগ কর্মীরা হোস্টেলের ৮/১০টি কক্ষ ভাঙচুর করে। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় এ ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এমসি কলেজ ও হোস্টেল এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।


জানা গেছে, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট রনজিত সরকারের অনুসারী টিটু-ডায়মন্ড ও হোসেন-দিলওয়ার উপগ্রুপের মধ্যে সিনিয়র জুনিয়র নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছিলো। এ নিয়ে বুধবার রাতে নগরীর এমসি কলেজ সংলগ্ন টিলাগড় এলাকায় উত্তেজনা ছিল। এর জের ধরে বৃহস্পতিবার সকালে উভয় গ্রুপের কর্মীরা কলেজ হোস্টেল এলাকায় ধাওয়া পাল্টাধাওয়ায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে এমসি কলেজ হোস্টেলে ব্যাপক ভাঙচুর করে তারা।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের শাহপরান থানার ওসি আকতার হোসেন জানান, এমসি কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের উত্তেজনার জের ধরে হোস্টেলে ভাঙচুর করা হয়েছে। হামলাকারীরা কলেজ হোস্টেলের ৮/১০টি কক্ষের গ্লাস ভাঙচুর করেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য ২০১২ সালের ৮ জুলাই ছাত্রলীগ ও শিবিরের সংঘর্ষের সময় পুড়িয়ে দেওয়া হয় ঐতিহ্যবাহী এমসি কলেজ হোস্টেল। এরপর প্রায় ৬ কোটি টাকা ব্যয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে হোস্টেলটি ফের নির্মাণ করা হয়। ২০১৩ সালে ৯ অক্টোবর শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ উদ্বোধন করেন এ ছাত্রাবাস। দীর্ঘদিন পর ছাত্রাবাসে শিক্ষার্থীদের তোলা হয়।

Post A Comment: