বগুড়ায় ছাত্রীকে ধর্ষণ পরে ধামাচাপা দিতে ওই ছাত্রী ও তার মাকে মাথা ন্যাড়া করে নির্যাতনের ঘটনায় দায়ের করা মামলার ৩ আসামিকে গ্রেফতার করেছে সাভার মডেল থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- রনু মিয়ার মেয়ে ও তুফানের স্ত্রী আশা (২০), শহিদুল ইসলামের ছেলে ও তুফানের গাড়িচালক জিতু (২৩), আব্দুল বাছেদের ছেলে ও তুফানের সহযোগী মুন্না (২৫)।
ধর্ষণের পর মাথা ন্যাড়া: তুফানের স্ত্রী আশাসহ গ্রেফতার ৩

    বগুড়ায় ছাত্রীকে ধর্ষণ পরে ধামাচাপা দিতে ওই ছাত্রী ও তার মাকে মাথা ন্যাড়া করে নির্যাতনের ঘটনায় দায়ের করা মামলার ৩ আসামিকে গ্রেফতার করেছে সাভার মডেল থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- রনু মিয়ার মেয়ে ও তুফানের স্ত্রী আশা (২০), শহিদুল ইসলামের ছেলে ও তুফানের গাড়িচালক জিতু (২৩), আব্দুল বাছেদের ছেলে ও তুফানের সহযোগী মুন্না (২৫)।


সাভার সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) খোরশেদ আলম তাদের গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।তিনি আরো বলেন, বগুড়া থেকে একটি প্রাইভেটকারে করে তুফানের স্ত্রী, গাড়িচালক ও তুফানের সহযোগী ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেয়। পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে তারা সাভারের হেমায়েতপুর এলাকায় এসে পৌঁছালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সাভার মডেল থানা পুলিশের একটি দল ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে অভিযান চালিয়ে সিলভার কালারের একটি প্রাইভেটকার আটক করে। এসময় ওই গাড়ির ভেতরে তল্লাশি চালিয়ে তুফানের স্ত্রী ও সহযোগীদের গ্রেফতার করে পুলিশ।

এরআগে শুক্রবার রাতে ঘটনার মূল হোতা তুফান সরকার ও তার তিন সহযোগী কসাইপাড়ার দুলু আকন্দের ছেলে আলী আজম দিপু (২৫), খান্দার সোনারপাড়ার মোখলেসার রহমানের ছেলে আতিক (২৫) ও কালিতলার জহুরুল হকের ছেলে রুপমকে (২৪) গ্রেফতার করা হয়। বগুড়ায় সদ্য এসএসসি পাস করা এক ছাত্রীকে ধর্ষণের পর তার মাসহ মাথা ন্যাড়া করে দেয় শ্রমিক লীগ নেতা তুফান। এঘটনায় গ্রেফতারের পর রোববার বিকেলে তাদের বগুড়ার অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম শ্যামসুন্দর রায়ের আদালতে হাজির করে ৭দিনের রিমান্ড চাইলে। আদালত তুফান সরকার ও তার সহযোগী প্রত্যেকের ৩দিন করে রিমান্ডে নেয়ার আদেশ দেন।

Post A Comment: